ফেসবুকে ‘ফ্রেন্ড’, সাড়ে ৪ মাস পর কিশোরী উদ্ধার

প্রকাশিত: ৯:০১ অপরাহ্ণ, মার্চ ২, ২০২১

ফেসবুকে ‘ফ্রেন্ড’, সাড়ে ৪ মাস পর কিশোরী উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক:: ফেসবুকে পরিচয়ের সূত্র ধরে বন্ধুত্বের সম্পর্কের টানে বরিশালে গিয়ে ফাঁদে আটকা পড়া ১৬ বছরের এক কিশোরীকে সাড়ে চার মাস পর উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২ মার্চ) বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আসাদুজ্জামান।

তিনি জানান, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর গ্রেফতার তিন জনকে এরইমধ্যে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে বরিশালে মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া সেল সূত্রে জানা গেছে, উদ্ধার হওয়া ওই কিশোরী নিম্নবিত্ত পরিবারের সন্তান। পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভালো না হওয়ায় মানুষের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করেই জীবিকা নির্বাহ করতো মেয়েটি।

হঠাৎ করেই প্রায় ৭/৮ মাস আগে ভিকটিমের সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেসবুকে পরিচয় হয় বরিশালের আরিফুল ইসলাম সুমনের (২৪) সঙ্গে। পরিচয়ের সূত্রে ভিকটিম তার পারিবারিক অসহায়ত্ব ও অভাব-অনটনের কথা জানায় ফেসবুক বন্ধু সুমনকে। ভিকটিমের কাছ থেকে সবকিছু শুনে সুমন তাকে আশ্বস্ত করে এবং ভিকটিমকে দেওয়ার মতো ভালো কাজ হাতে আছে বলে জানায় সুমন। তবে, ভিকটিম যদি সুমনের কাছে বরিশাল চলে আসে, মেয়েটিকে ভালো কাজ দিতে পারবেন বলে জানান সুমন। পাশাপাশি সুমনের পরিবারের সঙ্গেই ভিকটিম থাকতে পারবে বলে জানানো হয়।

এ ধরনের আশ্বাসে আশ্বস্ত হয় অসহায় মেয়েটি। পরবর্তীতে সুমন তার স্ত্রী হাবিবা আক্তার সুমিকে সঙ্গে নিয়ে ঢাকা গিয়ে ভিকটিমকে বরিশালে নিয়ে আসেন এবং নগরের ১৫ নম্বর ওয়ার্ডস্থ তাদের ভাড়া বাসায় ভিকটিমকে রাখেন। তবে, ভিকটিমকে চাকরি না দিয়ে ওই বাসায় আটকে রাখে সুমন ও তার স্ত্রী। পরবর্তীতে তাদের বন্ধু আরিফের সহায়তায় ভিকটিমের সঙ্গে অসামাজিক কার্যকলাপ করার চেষ্টা চালিয়ে যায়। বিভিন্ন সময় তাকে যৌন নিপীড়ন করতে থাকে। ভিকটিম যখন বুঝতে পারে অসৎ উদ্দেশ্যে ঢাকা থেকে তাকে এখানে এনে আটকে রাখা হয়েছে, তখন সে পালিয়ে ঢাকা যাওয়ার চেষ্টা করলে সুমন তাকে বিভিন্ন ধরনের ভয়-ভীতি দেখাতে শুরু করেন।

মিডিয়া সেলের উপ-পরিদর্শক (এসআই) তানজিল আহমেদ জানান, পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে প্রায় চার মাস ১৯ দিন আটক থাকার পর কোতোয়ালি মডেল থানার সহকারী পুলিশ কমিশনার রাসেল আহমেদের নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আসাদুজ্জামান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বরিশাল নগরের কোতোয়ালি মডেল থানাধীন ১৫নম্বর ওয়ার্ডস্থ সাইদুল কবির রিপনের মালিকানাধীন ভাড়া বাসায় অভিযান চালায়।

এসময় টিনশেড ভাড়াটিয়া ঘর থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার করা হয়। পাশাপাশি আরিফুল ইসলাম সুমন তার হাবিবা (১৮) ও তাদের বন্ধু আরিফকে (২২) আটক করা হয়। পরবর্তীতে মামলা দায়ের করে ১ মার্চ (সোমবার) আদালতের মাধ্যমে গ্রেফতারদের কারাগারে পাঠানো হয়।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ