বিশ্বকাপে স্ত্রীকে আলমারিতে লুকিয়ে রাখতেন সাকলাইন

প্রকাশিত: ১:২৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ২, ২০২০

বিশ্বকাপে স্ত্রীকে আলমারিতে লুকিয়ে রাখতেন সাকলাইন

খেলা ডেস্ক :: ১৯৯৯ সালে বিশ্বকাপ চলাকালীন নিজের স্ত্রীকে আলমারিতে লুকিয়ে রেখেছিলেন পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সাবেক অফস্পিনার সাকলাইন মুশতাক।

এমন আজগুবে কাজের কথা জানালেন সাকলাইন নিজেই।

সম্প্রতি বিয়ন্ড দ্য ফিল্ডের লাইভ শোতে এমন অদ্ভুত কাণ্ডের কথা জানালেন সাকলাইন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের রুম চেক করার জন্য প্রায়ই ম্যানেজার, কোচরা আসতেন। মাঝে মাঝে খেলোয়াড়রাও আসত আড্ডা দিতে। একদিন আমি রুমের দরজায় টোকার আওয়াজ পেয়ে আমার স্ত্রীকে বললাম আলমারিতে গিয়ে লুকিয়ে থাকো। কোচ, ম্যানেজার না যাওয়া পর্যন্ত পুরোটা সময় আমার স্ত্রী আলমারিতেই লুকিয়ে ছিল।’

ওই সময়টায় এভাবে স্ত্রীকে লোকচক্ষুর অন্তরালে রাখতেন সাকলাইন।

কোচদের ভয়ে স্ত্রীকে কেন লুকাতে হয়েছিল সে ব্যাখ্যাও দিয়েছেন সাকলাইন।

তিনি বলেন, ১৯৯৮ সালের ডিসেম্বরে বিয়ে করেছিলাম। আমার স্ত্রী লন্ডনেই থাকত। তাই ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপে আমি তার সঙ্গে থাকা শুরু করি। দিনে দলের সঙ্গে কঠোর অনুশীলন আর সন্ধ্যায় স্ত্রীকে সময় দেয়া। বেশ ভালোই চলছিল। কিন্তু হঠাৎ একদিন সিদ্ধান্ত আসে, পরিবারের সবাইকে ফেরত পাঠিয়ে দিতে হবে। সবাই পরিবারকে দেশে পাঠিয়ে দিলেও আমি দলের এই সিদ্ধান্ত মানিনি। স্ত্রীকে সঙ্গেই রেখে দিয়েছিলাম।’

কোচ, ম্যানেজার ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ফাঁকি দিতে পারলেও অবশ্য সতীর্থদের কাছে ফেঁসে যান সাকলাইন।

আজহার মাহমুদ ও মোহাম্মদ ইউসুফ তার স্ত্রীকে দেখে ফেলেন।

প্রসঙ্গত ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপে দারণ ভেলকি দেখিয়েছিলেন সাকলাইন মুশতাক। যুগ্মভাবে আসরের তৃতীয় সর্বোচ্চ ১৭ উইকেট শিকারি ছিলেন। তবে ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জিততে পারেনি পাকিস্তান।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ