বিশ্বনাথে এক অফিস সহকারির আত্মহত্যা : অধ্যক্ষ নিখোঁজ, আটক ১

প্রকাশিত: ৭:০৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ৮, ২০২০

বিশ্বনাথে এক অফিস সহকারির আত্মহত্যা : অধ্যক্ষ নিখোঁজ, আটক ১

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:: সিলেটের বিশ্বনাথে কমিটির সভাপতি, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও এক সদস্যের প্ররোচনায় স্কুলের অফিস সহকারি আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নরে দৌলতপুর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের অফিস সহকারি আসমা বেগম শিমলা (৪১)। সোমবার বিকেলে তিনি হাবড়াবাজারস্থ স্কুলের পাশে ভাড়াটিয়া বাসায় হারপিক খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্ঠা করেন।

ওইদিন তাকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টার দিকে চিকিৎসাধিন অবস্থায় ওসমানী হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। বুধবার বিকেলে লাশের ময়না তদন্ত শেষে পিতা ফিরোজ মিয়া শিকদারের বাড়ি একই ইউনিয়নের আটপাড়া গ্রামে দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। এঘটনার অভিযোগে বিকেলে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আনোয়ার মিয়া (৪৬) কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়েছে পুলিশ। তবে অধ্যক্ষকে এলাকায় খুজে পাওয়া যায়নি। তার মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যায়।

স্বামী ফজলু মিয়া অভিযোগ করে বলেন- প্রায় ১৯ বছর ধরে স্ত্রী আসমা বেগম শিমলা ওই স্কুলে অফিস সহকারির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। প্রায় ১৫ থেকে ২০দিন ধরে স্কুলের হিসাবের জন্য নব-গঠিত কমিটির সভাপতি আব্দুর রউফ, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হাসিম উদ্দিন ও সদস্য আনোয়ার হোসেন ওই অফিস সহকারিকে চাপ সৃষ্ঠি করে আসছেন। আর এই চাপ সহ্য করতে না পারায় তার স্ত্রী আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি করেন।

এব্যাপাওে জানতে চাইলে স্কুলের নব-গঠিত কমিটির সভাপতি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে বলেন- স্কুলের হিসাবের জন্য একজন কর্মচারীকে চাপ সৃষ্টি করা যায়না। তবে পুরাতন কমিটির কাছ থেকে নতুন কমিটির কাছে এখনও নো হিসাব দেয়া হয়নি। এনিয়ে গত সোমবার (শিমলা) হারপিক খাওয়ার ঘটনার দিন স্কুলে একটি মিটিং করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এঘটনায় নিহত আসমা বেগম শিমলার পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ দেয়া হবে বলে ওসি শামীম মূসা জানান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ