বিশ্বনাথ পৌরসভার সীমানা নিয়ে অসন্তোষ : বঞ্চিতদের অন্তর্ভুক্তির দাবি

প্রকাশিত: ৫:০৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০২০

বিশ্বনাথ পৌরসভার সীমানা নিয়ে অসন্তোষ : বঞ্চিতদের অন্তর্ভুক্তির দাবি

 

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি: নবগঠিত বিশ্বনাথ পৌরসভার সীমানা নির্ধারণ নিয়ে জনমনে অসন্তোষ আর ক্ষোভ বিরাজ করছে। উপজেলা সদরের নিকটবর্তি গ্রাম ও মৌজাগুলো বাদ দিয়ে প্রায় ৭ কিলোমিটার দুর থেকে গ্রাম ও মৌজা অন্তর্ভুক্ত করায় এ অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। এছাড়া ওয়ার্ড বিভক্ত করণেও বিতর্ক রয়েছে। পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত হতে বঞ্চিতদের পক্ষ থেকে গত ১৮ সালে জেলা প্রশাসক আর চলতি মাসে পৌর প্রশাসক বরাবরে লিখিত ভাবে দাবিও জানানো হয়েছে। কিন্তু এর কোন ফলাফল না হওয়ায় শনিবার দলমত নির্বিশেষে বঞ্চিতদের পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত করার দাবিতে নাজিরবাজারে এক পরামর্শ সভা করেছেন তিন ওয়ার্ডের প্রায় ২০-২৫ টি গ্রামের লোকজন।

সভায় ক্ষোব্ধ জনসাধারণ বলেন, তারা উপজেলা সদর থেকে ২,৩ কিলোমিটারের ভেতরে অতি নিকটে রয়েছেন। কিন্তু তাদেরকে অনেকটা কৌশলে বাদ দিয়ে ৭ কিলোমিটার দুর থেকে মৌজা আর গ্রাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সম্প্রতি বিতর্কিত ওয়ার্ডও বিভক্ত করেছে প্রশাসন। সভায় বক্তারা এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে তাদেরকে পৌরসভায় অন্তরভুক্ত করার দাবি করেন। আর না আগামিতে তারা কঠোর আন্দোলন করবেন বলে হুসিয়ারি দেন।

এলাকার বিশিষ্ট মুরব্বি মোঃ ইরন মিয়ার সভাপতিত্বে সভায় এলাকাবাসী মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছয়ফুল হক, শাহ আসাদুজ্জামান আসাদ, জামাল আহমদ, ফারুক মিয়া, তজম্মুল আলী রাজু, শেখ নুর মিয়া, শেষ মোহাম্মদ আজাদ, আশিক আলী, মোসাদ্দিক হোসেন সাজুল, শাহ নেওয়াজ চৌধুরী সেলিম মেম্বার, আব্দুল মুমিন মামুন মেম্বার, আনছার আলী, সিতাব আলী, ফজলু মিয়া, হুসাইন আহমদ প্রাভেল, প্রবাসী মজনু মিয়া, রাজন মিয়া, মনুহর আলী মুন্না, মফিক মিয়া, টিপু মিয়া, আসাদুজ্জামান নুর আসাদ, শাহিদুল ইসলাম সাইদ ও আমির আলী।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আমাদের ফেইসবুক পেইজ