বড়লেখায় কোটিপতি ব্যবসায়ী অপহরণে জড়িত ৪ জনকে কারাগারে প্রেরণ

প্রকাশিত: ১২:৪৪ পূর্বাহ্ণ, জুন ১১, ২০২১

বড়লেখায় কোটিপতি ব্যবসায়ী অপহরণে জড়িত ৪ জনকে কারাগারে প্রেরণ

স্বপন দেব, নিজস্ব প্রতিবেদক :: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় কোটিপতি ব্যবসায়ী শশাঙ্ক কুমার দত্তকে অপহরণের ঘটনায় জড়িত আরোও ৪ জনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বুধবার গ্রেপ্তার ৪ জনকে বড়লেখা জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। পরে আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন চন্দ্র দেবনাথ বুধবার(৯জুন) রাতে জানান, গত মঙ্গলবার উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান পরিচালনা করে তিনি ও তারসঙ্গী পুলিশদল আসামীদের গ্রেপ্তার করেছে।
গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে, বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের বিছরাবন্দ গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে কবির হোসেন, বিছরাবন্দ গ্রামের মনির আলীর ছেলে ছফর উদ্দিন, পাঁচপাড়া (অফিসবাজার) গ্রামের আব্দুল লতিফ ওরফে লতিবুর রহমানের ছেলে দেলোয়ার হোসাইন, উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের নান্দুয়া গ্রামের মৃত নছির আলীর ছেলে জুবের আহমদ।
এরআগে ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারীদের একজন উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের চন্ডিনগর (বড়গুল) গ্রামের মৃত তোতা মিয়ার ছেলে সবুজ হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এই চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন চন্দ্র দেবনাথ বলেন, অপহরণ ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারীদের একজন সবুজ হোসেনের দেয়া তথ্যমতে ৪জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের রিমান্ড চাওয়া হবে। এঘটনায় মোট ৭জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
উল্লেখ্য,গত শুক্রবার (৪ জুন) বিকেল ছয়টার দিকে শশাংক কুমার দত্ত তাঁর বারইগ্রামের বাড়ি থেকে সিলেটের টিলাগড়ের ভাড়াটিয়া বাসার উদ্দেশ্যে বের হন। তিনি বড়লেখা উত্তর চৌমোহনা পোষ্ট অফিসের সামনে থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় সিলেটের বিয়ানীবাজার যান। বিয়ানীবাজার থানার বারইগ্রামে গাড়ি বদলে সিলেটের উদ্দেশ্যে আরেকটি অটোরিকশায় উঠেন। সিলেট যাওয়ার পথে বিয়ানীবাজার থানার মোল্লাপুর রাস্তার সামনে পৌঁছালে একটি মাইক্রোবাস শশাঙ্ক কুমার দত্তের গাড়ির গতিরোধ করে তাঁকে জোরপূর্বক মাইক্রোবাসে তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। অপহরণকারী চক্র শশাঙ্ক কুমার দত্তকে অজ্ঞাত স্থানে রেখে বিভিন্ন ভিওআইপি নম্বর থেকে অপহৃত ব্যবসায়ীর ছোট ভাই সুবোধ কুমার দত্তের মোবাইলে ফোনে মুক্তিপণ হিসেবে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এই ঘটনায় সুবোধ কুমার দত্ত বড়লেখা থানায় আইনগত সহায়তা চান। পরে পুলিশের বিশেষ দল মাঠে নামে ও তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে অপহারণকারীকে উদ্ধারে টানা অভিযান চালায়। এরই ধারাবাহিকতায় রোববার (৬ জুন) দিবাগত রাতে বাহাদুরপুর চা-বাগানের গভীর জঙ্গল থেকে অপহৃত ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করা হয়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আমাদের ফেইসবুক পেইজ