মৌলভীবাজারে মিছবাহয় ‘অনাস্থা’ শফিকের

প্রকাশিত: ৩:৩৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০

মৌলভীবাজারে মিছবাহয় ‘অনাস্থা’ শফিকের

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: নতুন দায়িত্ব পেয়ে সিলেট বিভাগে সাংগঠনিক সফরে আসা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিকের মৌলভীবাজার জেলার সভা হয়নি। এ সভা নিয়ে কেন্দ্র ও জেলা শাখার নেতারা পরস্পরকে দোষারোপ করছেন। সভা না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নেতাকর্মীরা।

একদিকে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক নেতারা বলছেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক দুর্বলতা ও জটিলতা থাকা এবং সভাপতির অনুপস্থিতির কারণে সভা স্থগিত করেছেন। অন্যদিকে জেলা আওয়ামী লীগ বলছে কেন্দ্রীয় নেতা সাংগঠনিক হৃদমের বাইরে যাওয়ার কারণে সভা বাতিল করা হয়েছে। তবে দীর্ঘদিন পর দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতার কাছে দলের অভ্যন্তরের চিত্র তুলে ধরতে না পারায় অনেক নেতাকর্মী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা বলছেন, কেন্দ্রীয় নেতার সামনে দলের বর্তমান সাংগঠনিক অবস্থা ফাঁস হয়ে যাবে বলেই অজুহাত দেখিয়ে সভা বাতিল করা হয়েছে।

গত বুধবার মৌলভীবাজার পৌরসভার মিলনায়তনে পূর্ব নির্ধারিত জেলা আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। এ সভায় যোগ দেবেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সিলেট বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত নেতা সাখাওয়াত হোসেন শফিক, এমনটাই প্রত্যাশা ছিল নেতাকর্মীদের।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিছবাহ উর রহমান বলেন, আমরা মনে করেছি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তিনি সাংগঠনিক হৃদমের বাইরে গিয়ে কাজটি করেছেন। তাই আমরা সভা বাতিল করেছি।

সাখাওয়াত হোসেন শফিক বলেন, ‘আমি কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক। জেলা আওয়ামী লীগ বাতিল করার কে? জেলা আওয়ামী লীগে অনেক দুর্বলতা ও জটিলতা রয়েছে। এই তথ্যগুলো সভাপতি-সম্পাদকের উপস্থিতি ছাড়া সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে না। যেহেতু জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অনুপস্থিত। আমি তাদের বলছি, সভা স্থগিত করতে। জেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি কী বলছে- সেটা আমার জানা নেই। কারণ আমি তো তাদের দায়িত্ব বহন করি না।

সাংগঠনিক হৃদমের বাইরে যাওয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন,  ‘আমিতো বুধবার সুনামগঞ্জে প্রোগ্রাম করেছি। সিলেট জেলা ও মহানগরের সঙ্গে কথা বলেছি। সব পর্যায়ের নেতারা এখানে উপস্থিত ছিলেন। তাহলে কি মনে হওয়ার কথা সাংগঠনিক হৃদমের বাইরে কিছু করেছি। এখানে সম্পূর্ণ সাংগঠনিক নিয়মের মধ্য দিয়ে যেন চলতে পারি, সেই দিকটা বিবেচনা করেই কিন্তু আমি এ কাজটা করেছি।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল হোসেন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মৌলভীবাজারে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের সফরে যে মতবিনিময় সভা ছিল। সেটা উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক বাতিল করেন। আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক বিভিন্ন দুর্বলতার ব্যাপারে কেন্দ্রীয় নেতার সামনে কোনো সঠিক ব্যাখ্যা দিতে পারবেন না বলেই, তারা এই একটি অজুহাত দেখিয়ে সভা বাতিল করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আমাদের ফেইসবুক পেইজ