রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ব্যস্ততার কারনে আজ আসতে পারেন নি, ভারতে আছেন!

প্রকাশিত: ১০:৩৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৯

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ব্যস্ততার কারনে আজ আসতে পারেন নি, ভারতে আছেন!

গুলজার আহমদ :: রবীন্দ্রনাথের আগমনের শত বছর উপলক্ষে সকালে সিলেট সিটি কর্পোরেশন একটি র‌্যালী বের করে। সংগত কারনেই র‌্যালী শুরু হওয়ার মিনিট ৩০ আগে চলে যাই । গিয়ে দেখলাম নগর প্রধান সহ সম্মানীত সকল কাউন্সিলর বৃন্দও, সব কর্মকর্তা কর্মচারীর গায়ে নতুন পোষাক, প্রকার ভেদে কেউ পড়েছেন পাঞ্জাবি , কেউ পড়েছেন টি সার্ট । তবে পোষাকে শ্রেনী বৈষম্য থাকলেও এক যায়গায় মিল ছিল – সব পোষাকেই রবীন্দ্রনাথের ছবি আঁকা ছিল । ব্যাপারটি দেখে আমি অবিভুত । গর্বে বুকটা ৩৭ ইঞ্চি থেকে ৩৯ ইঞ্চি হয়ে গেল । ভাবলাম খুদ সিটি কর্পোরেশনের সবাই ই যদি রবীন্দ্রনাথকে এত লালন করে তাহলে না জানি সিলেটের সাহিত্য সংস্কৃতি পাড়ায় রবীন্দ্রাথের কদর কেমন ! এমন আয়োজন শুধু আমি নয় পুরো সিলেটের গর্ব করা উচিত সিটি কর্পোরেশনের রবীন্দ্রমেলার জন্য ।

যাক হাতে সময় কম- একটা বিষয় বলে নেই । র‌্যালী শুরুর ২০/২৫ মিনিট আগে র‌্যালীর টি সার্ট পড়া এক ভদ্রলোককে ইশারা দিয়ে কাছে ডাকলাম, (তিনি তৃতীয়/চতুর্থ শ্রেনীর কোন কর্মকর্তা বা কর্মচারী হবেন অনুমান) কানে কানে জিজ্ঞেস করলাম ভাই এখানে কিসের আয়োজন, আমাকে একটা টি সার্ট দেয়া যাবে কি । জবাবে সেই রবীন্দ্রপ্রেমি আমাকে বললেন আরে আজকে তো রবীন্দ্রাথ কে নিয়ে র‌্যালি হবে । আবারো জিজ্ঞেস করলাম রবীন্দ্র দা এসেছেন – সেই মহাশয় জবাব দিলেন , না তিনি ব্যস্ততার কারনে আজ আসতে পারেন নি, ভারতে আছেন । কিন্তু তারপরও র‌্যালী হবে । আর টি সার্ট শেষ , নাই দেয়া যাবে না । তারপর আবার জিজ্ঞেস করলাম ভাই রবীন্দ্র দা আসলে কে আপনি জানেন না কি , রবীন্দ্রনাথ কে স্মরন কারী ভাইটি উত্তর দিলেন তিনি বিখ্যাত একজন ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন । আমি শুনে তো ভাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সটকে পড়লাম। পড়ে ভাবলাম – আসলেই তো ভাই একজন রবীন্দ্রপ্রেমি হিসেবে যা বলেছে ঠিক বলেছেন , কারন তিনি যেহেতু সিটি কর্পোরেশনে কর্মরত (মনে হয় ইঞ্জিনিয়ারিং সেকশনে) তাই তার ভাবনাটাও সেরকম । অবশ্যই তার কথাটা ঠিক , আমি ভুল ।

লেখক :  সাংবাদিক (লেখকের ফেইসবুক থেকে নেওয়া)

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ খবর

আমাদের ফেইসবুক পেইজ