রোনালদোর রেকর্ডের রাতে নকআউট পর্বে পর্তুগাল-ফ্রান্স

প্রকাশিত: ৯:২৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৪, ২০২১

রোনালদোর রেকর্ডের রাতে নকআউট পর্বে পর্তুগাল-ফ্রান্স

স্পোর্টস ডেস্ক

আন্তর্জাতিক ফুটবলে এতদিন এককভাবে শীর্ষ গোলদাতা ছিলেন ইরানের আলী দাইয়ি। গোল ছিল তার ১০৯। ১০৭ গোল নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো এই ম্যাচে আলী দাইয়ি ছুঁতে করলেন জোড়া গোল। তার গোলও এখন ১০৯! রোনালদোর কীর্তির এই রাতে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ নকআউট পর্বে উঠেছে পর্তুগাল। গ্রুপ সঙ্গী এই ম্যাচের প্রতিপক্ষ ফ্রান্সও, সঙ্গে আছে জার্মানি।

বুধবার রাতে কোপেনহেগেনের পারকেন স্টেডিয়ামে ফ্রান্স ও পর্তুগালের ম্যাচ ২-২ গোলে ড্র হয়েছে। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পাশাপাশি ফ্রান্সের হয়ে একসময়ের তার রিয়াল মাদ্রিদ সতীর্থ করিম বেনজেমাও করেছেন জোড়া গোল।

৫ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ফ্রান্স। আরেক ম্যাচে হাঙ্গেরির বিপক্ষে দুবার পিছিয়ে পড়া জার্মানিও ঘুরে দাঁড়িয়ে ২-২ গোলে ড্র করে গ্রুপ রানার্সআপ হয়েছে। জার্মানি ও পর্তুগালের পয়েন্ট সমান ৪, মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে জার্মানরা। ছয় গ্রুপের তৃতীয় স্থান পাওয়া দলগুলোর সেরা চারটির একটি হয়ে শেষ ষোলোয় ঠাঁই পেয়েছে পর্তুগাল।

বল দখলে দুদলই ছিল সমানে-সমান, গোলের উদ্দেশে পর্তুগাল ১০ আর ফ্রান্স ১১ টি শট নিয়েছে। দুই দলেরই পাঁচটি করে শট ছিল লক্ষ্যে।

ম্যাচের ৩০তম মিনিটে রোনালদোর স্পট কিকে এগিয়ে যায় পর্তুগাল। ডি-বক্সে উড়ে আসা বল পাঞ্চ করে ফেরাতে গিয়ে দানিলো পেরেইরার মুখে লরিস আঘাত করলে পেনাল্টি পায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল। গোলরক্ষককে হলুদ কার্ডও দেখান রেফারি। আগের ছয় ম্যাচে কোন গোল না পেলেও এই ম্যাচের মাধ্যমে ফ্রান্সের বিপক্ষে প্রথম গোল পেলেন রোনালদো।

বিরতির আগে বেনজেমার সফল স্পট কিকে সমতায় ফেরে ফ্রান্স। ডি-বক্সে ঢোকার মুখে নেলসন সেমেদোর বাধায় এমবাপে পড়ে গেলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

দ্বিতীয়ার্ধের দ্বিতীয় মিনিটেই এগিয়ে যায় ফ্রান্স। পগবার উঁচু করে বাড়ানো দারুণ থ্রু বল ডিফেন্ডারদের পেছনে ফেলে ডি-বক্সে পেয়ে কোনাকুনি শটে ঠিকানা খুঁজে নেন বেনজেমা।

৬০তম মিনিটে দ্বিতীয় সফল স্পট কিকে আবারও দলকে এগিয়ে দেন রোনালদো। ফ্রান্সের ডি-বক্সে তাদের ডিফেন্ডার জুল কুন্দের হাতে বল লাগলে পেনাল্টিটি পায় পর্তুগিজরা।

আন্তর্জাতিক ফুটবলে ইরানের আলি দাইয়ির ১০৯ গোলের বিশ্ব রেকর্ড স্পর্শ করলেন রোনালদো। আর এবারের আসরে তার মোট গোল হলো পাঁচটি, ইউরোর ইতিহাসে রেকর্ড ১৪টি।

গতবারও চার তৃতীয় সেরা দলগুলোর একটি হয়ে নকআউট পর্বে উঠেছিল পর্তুগাল। জিতেছিল শিরোপা। আগামী রোববার শেষ ষোলোয় বেলজিয়ামের মুখোমুখি হবে ফের্নান্দো সান্তোসের দল।

আগামী সোমবার শেষ ষোলোয় ফ্রান্স খেলবে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ