লিডিং ইউনিভার্সিটিতে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

প্রকাশিত: ২:২৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৬, ২০২১

লিডিং ইউনিভার্সিটিতে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন

অনলাইন ডেস্ক : মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন করেছে সিলেটের প্রথম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় লিডিং ইউনিভার্সিটি। এ উপলক্ষে শুক্রবার (২৬ মার্চ) সকাল ১১টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অবস্থিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমারেন ম্যুরাল ও শহিদ মিনারে স্বাধীনতা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করেন লিডিং ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান ড. সৈয়দ রাগীব আলী, উপাচার্য প্রফেসর ড. কাজী আজিজুল মাওলা, ট্রেজারার বনমালী ভৌমিক, বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য সৈয়দ আব্দুল হাই এবং বিশ্ববিদ্যালয়েল শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

শ্রদ্ধাঞ্জলি শেষে সকাল সাড়ে ১১টায় ইউনিভার্সিটির রাগীব আলী ভবনের (দ্বিতীয় একাডেমিক ভবন) গ্যালারী-০১ এ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০২১ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে লিডিং ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান ড. সৈয়দ রাগীব আলী স্বাধীনতা সংগ্রামের স্মৃতিচারণ ও শহিদদেরকে শ্রদ্ধাভরে স্বরণ করে বলেন, আমাদের স্বাধীন বাংলাদেশের বর্তমান তরুণ সমাজকে সুশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে এবং প্রকৃত মানবসম্পদে পরিনত করতে হবে। সুন্দর দেশ, সমাজ ও জাতি গঠন করতে হলে আমাদেরকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বরণ করে তিনি বলেন, আমরা আজ স্বাধীন পতাকা পেয়েছি, দেশে শিক্ষা, আর্থসামাজিক, যোগাযোগসহ বিভিন্নক্ষেত্রে উন্নয়ন হচ্ছে। তিনি লিডিং ইউনিভার্সিটি এ উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় ভূমিকা রাখছে বলেও উল্লেখ করেন।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর শুভেচ্ছা জানিয়ে এবং হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধাভরে স্বরণ করে সভাপতির বক্তব্যে লিডিং ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. কাজী আজিজুল মাওলা বলেন, সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি এবং তা ধরে রাখার দায়িত্বও আমাদের। তিনি আরও বলেন, বর্তমান প্রজন্মকে স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রেক্ষাপট এবং বাস্তবতার সঠিক ইতিহাস জানতে হবে, স্বাধীনতার ইতিহাস ও মূল্যবোধকে নিজেদের মধ্যে ধারন করতে হবে। উপাচার্য বলেন, দেশ স্বাধীন হয়েছে বলেই বর্তমান বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই দেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে।

তিনি বলেন, আজ আমরা মুক্ত, এটি আমাদের অর্থনিতিক ও সামাজিক মুক্তি উল্লেখ করে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বনমালী ভৌমিক বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চেতনায় উজ্জীবিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ত্যাগের বিনিময়ে আজ আমরা স্বাধীন মাতৃভূমি পেয়েছি। তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতা তুমি কোটি মানুষের অহংকার, আমাদের গর্ব, আজ থেকে ৫০ বছর পূর্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘোষণার মধ্য দিয়েই এই দিনে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ। রচিত হয় বাংলাদেশের স্বাধীনতা, বঙ্গবন্ধুর ডাকে জীবনপণ সশস্ত্র লড়াইয়ে ঝাপিয়ে পড়ে বীর বাঙালি, উদিত হয় বাংলার আকাশে স্বাধীনতার চিরভাস্বর সূর্য।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন লিডিং ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য সৈয়দ আব্দুল হাই। ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠান আয়োজক কমিটির আহবাহক ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. বশির আহমেদ ভূঁইয়া। অনুষ্ঠানে লিডিং ইউনিভার্সিটির আধুনিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এম. রকিব উদ্দিন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মোস্তাক আহমাদ দীন, প্রক্টর মো. রাশেদুল ইসলাম, বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
     12
24252627282930
31      
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ