শনিবার থেকে সিলেটে কঠোর লকডাউন!

প্রকাশিত: ৩:০৩ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২০

শনিবার থেকে সিলেটে কঠোর লকডাউন!

নিজস্ব প্রতিবেদক :: এবারের লকডাউন খুবই কঠোর হবে। তাই নগরবাসীকে ২ দিনের সময় দেওয়া হয়েছে। হাট-বাজার করার জন্য। পুরো প্রস্তুতি নিয়ে শনিবার থেকে ২১ দিনের জন্য সিলেট নগরীতে লকডাউন করা হবে।

আজ বুধবার (১৭ জুন) সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবারের বদলে আগামী শনিবার থেকে লকডাউনের প্রস্তাব দিয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশন। গতকাল মঙ্গলবার (১৬ জুন) রাতে নগরভবনে অনুষ্ঠিত বৈঠকে প্রশাসনের কাছে এই প্রস্তাব দেওয়া হয়।

সিলেট সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে আগামীকাল বুধবার ঢাকায় লিখিত আকারে এই প্রস্তাব পাঠানো হবে বলে জানা গেছে।

জাহিদুল ইসলাম আরো বলেন, এবারের লকডাউন খুবই শক্ত হবে। মানুষকে ২ দিন দিন সময় দিলে সহজে প্রয়োজনীয় বাজার করতে পারবে। হঠাৎ সবকিছু বন্ধ হলে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী জিনিসপত্রের দাম বাড়াতে পারে। এছাড়া তিনি বলেন, দুই দিন সময় দেয়া হলে সিটি কর্পোরেশন থেকে মাইকিং করে মানুষকে লকডাউন সম্পর্কে জানিয়ে দেয়া যাবে। শুক্রবার মসজিদের ইমামরাও লকডাউনের বিষয়ে মানুষকে সহজে জানাতে পারবেন।

তিনি বলেন, রেড জোনে ওষুধের দোকান ২৪ ঘণ্টা এবং মোদি দোকানগুলো বিকাল ৪টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। আর বাকি সকল ধরনের দোকান বন্ধ থাকবে। এছাড়া সকল গণপরিবহন ও ব্যাংকগুলো বন্ধ থাকবে। তবে এটিএম বুথের মাধ্যমে লেন-দেন করতে পারবেন গ্রাহকরা।

সিলেটের সিভিল সার্জন প্রেমানন্দ মণ্ডল বলেন, রেডজোন চিহ্নিত হওয়া এলাকাকে লকডাউন করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

উপজেলা পর্যায়ে লকডাউনের ব্যাপারে সিভিল সার্জন বলেন, উপজেলার যেসব ইউনিয়নে সংক্রমণ বেশি সেসব ইউনিয়নকে লকডাউন করা হবে। তবে ইউনিয়নের যে এলাকায় রোগী বেশি। নির্দিষ্ট ওই এলাকাটি লকডাউনের ব্যাপারেও আমরা চিন্তা করছি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ স্থানীয় পর্যায়ের কর্মকর্তাদেরও মতামত নেয়া হচ্ছে। আজকালের মধ্যে এ ব্যাপারে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়ে যাবে।

প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণের হার বিবেচনায় দেশের বিভিন্ন এলাকাকে রেড, ইয়েলো ও গ্রিণ জোন হিসেবে ভাগ করে সরকার। সোমবার রেড ও ইয়েলো জোনে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। আর রেড জোনে সেনাবাহিনীর টহল বাড়ানোর কথাও সরকারি তরফ থেকে জানানো হয়েছে। এরআগে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে গত ১১ এপ্রিল সিলেট জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করেছিলেন জেলা প্রশাসক কাজী এমদাদুল ইসলাম।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ