শ্রীমঙ্গলে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা মূলক চলচ্চিত্র ‘সুরক্ষা এলার্ট’ প্রদর্শিত

প্রকাশিত: ৩:৫৬ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৩, ২০২১

শ্রীমঙ্গলে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা মূলক চলচ্চিত্র ‘সুরক্ষা এলার্ট’ প্রদর্শিত

স্বপন দেব, নিজস্ব প্রতিবেদক :: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নির্মিত হয়েছে জনসচেতনতা মূলক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘সুরক্ষা এলার্ট’। মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ভিডিওটি নির্মাণ করেছে শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেইজসহ সোশ্যাল মিডিয়ায় ইতিমধ্যে চলচ্চিত্রটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে।
গত রোববার রাতে এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি উপজেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেইজে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। তারপর থেকে বেশ সাড়া মিলেছে চলচ্চিত্রটি’র। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটিতে দেখা যায়, শামীম নামের এক তরুণ পরিবারে মাস্ক ও অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি না মেনে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়িয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে সে কিছুদিনের মধ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়ে। সে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত থাকাকালীন সময়ে তার বয়স্ক বাবা মা তার সংস্পর্শে আসার কারণে তারাও করোনায় আক্রান্ত হয়।
ছেলের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো থাকার কারণে সে কিছুদিনের মধ্যেই সেরে ওঠে। কিন্তু তার বয়স্ক মা বাবা করোনা থেকে মুক্তি পায়নি। তারা করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যায়।
শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রশাসনের পৃষ্ঠপোষকতায় স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করেন অধ্যাপক অবিনাশ আচার্য, ইপা বড়ুয়া, অনির্বাণ সেনগুপ্ত, আব্দুল ওয়াহিদ ও পিয়াল আহমেদ। চল”িত্রটির কাহিনী লিখেছেন গল্পকার কপিল কুরি। চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেন নাগরদোলা ফিল্মের পরিচালক, সংবাদিক শিমুল তরফদার।
মঙ্গলবার শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম জানান, করোনার ২য় ধাপে সারাদেশে প্রতিদিন মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। তরুণরাই বেশী স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করে বাহিরে ঘুরাফেরা করছেন। আমরা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছি। এর সাথে সাথে সোশ্যাল মিডিয়ার ম্যাধ্যমে আমরা সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছি। এরই ধারাবাহিকতায় আমরা এই সচেতনতা মুলক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছি।
তিনি আরও বলেন, ‘এই ভিডিওটি দেখলে তরুণরা সচেতন হবে বলে আমরা মনে করি। ভিডিওটি আমাদের ফেসবুক পেজ ‘উপজেলা প্রশাসন শ্রীমঙ্গল’ এর রয়েছে। আমরা আশা করছি নিজের এবং পরিবারের কথা ভেবে সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন। সবাই সঠিকভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে করোনা থেকে মুক্তি পাওয়া অনেকটা সম্ভব বলে মনে করি।’

 

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ