সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গাপূজার সিলেট জেলায় ৬০৫টি মন্ডপে আয়োজিত হবে।       

প্রকাশিত: ৮:০৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গাপূজার সিলেট জেলায় ৬০৫টি মন্ডপে আয়োজিত হবে।       

 

নিজস্ব প্রতিবেদক :: আর মাত্র কয়েক দিন আগামী ১০ অক্টোবর রবিবার মহাপঞ্চমীর মধ্যে দিয়ে শারদ উৎসব শুরু হবে। সারা দেশের মতো সিলেটেও চলছে প্রতিমা গড়ার কাজ।

আগামী পঞ্চমী তিথিতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে।   ইতোমধ্যে শিল্পীদের দক্ষ হাতের ছোঁয়ায় পূর্ণরূপে ফোটে ওঠেছে দৃষ্টিনন্দন অধিকাংশ প্রতিমা। সারা দেশের মতো সিলেটেও চলছে প্রতিমা গড়ার কাজ। এ কাজে খুবই ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা। দেবী দুর্গা আসছেন অন্ধকার আচ্ছন্ন পৃথিবীকে আলোকিত করতে। ঢাক, ঢোল, শঙ্খধ্বনি আর উলুধ্বনি দিয়ে দেবী দুর্গাকে বরণ করার জন্য অপেক্ষা করছেন ভক্তরা।

এবং মেয়ে যাচ্ছে স্বামীর বাড়ি। তাই বরণ করে নেওয়া। আর দ্রুতই যেন ফিরে আসে এই কামনায় সিঁদুর পরানো। সেখান থেকে নিজেও পরে নেওয়া। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজায় এভাবে করা হয় ‘দেবী বরণ’। বিজয়া দশমীতে দেবী বরণ শুরু হয় সিঁদুর পরানোর মাধ্যমে।  দেবীর আসার ক্ষণে সনাতন হিন্দু ধর্মের মানুষরা মেতে উঠছেন আনন্দ-উল্লাসে। সিলেট জেলায় প্রায় সকলখানেই দেখা যায়  পূজোর প্রস্তুতির বেড়ে গেছে শতগুণ।

আগামী ১০ অক্টোবর রবিবার মহাপঞ্চমীর মধ্যে দিয়ে শারদ উৎসব শুরু হবে।

বৈশ্বিক মহামারী ভয়াবহ করোনাভাইরাস-এর সংকটময় মুহুর্ত্বেও সরকার কৃর্তক সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে এবারও সিলেট জেলা শারদীয় শ্রীশ্রীদুর্গা পূজার আনন্দ-উৎসব  পালন  হবে।

তার  জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।মন্ডপে মন্ডপে দেবী দুর্গার বর্ণিল সাজ-সজ্জার শেষ মুহুর্তের কাজ পুরোদমে চলছে। আপন মনের মাধুরী মিশিয়ে শিল্পীরা অবিরাম কাজ করছেন।

পূজোর যাবতীয় উপকরণ, পূজো, পুষ্পাঞ্জলি প্রদান, চণ্ডীপাঠ, মহাপ্রসাদ বিতরণ, আলোচনাসভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আরতী, ভজন কীর্ত্তন, আলোকসজ্জা ও ডেকোরেশনসহ নানান প্রস্তুতি এখন প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। পূজা আয়োজনকারী প্রতিটি কমিটিগুলো ও পারিবারিক পূজা উদ্যোক্তারা এখন সর্বশেষ নান্দনিক সুন্দর আয়োজনের জন্য বিরামহীনভাবে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। শারদ উৎসব উপলক্ষে সিলেট নগরীর জিন্দাবাজার  ও বন্দর বাজার দোকান শপিং মহল গুলোতে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত  ক্রেতাদের ভিড় বেড়েছে।সনাতন ধর্মের লোকজন নতুন পোশাক ক্রয় করতে এ মার্কেট ওমার্কেট ঘুরে বেড়াচ্ছেন।এবার সিলেট জেলায় ৬০৫টি মন্ডপে পূজা আয়োজিত হবে। তার মধ্যে সার্বজনীন ৫০টি, পারিবারিক ১৫টি পূজোর আয়োজন হবে। সিলেট সিটি কর্পোরেশন এলাকায় সার্বজনীন ৫০টি ও পারিবারিক ১৫টি পূজো অনুষ্ঠিত হবে।বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেট জেলা ও মহানগর শাখা সূত্রে জানা গেছে, এই বছর সিলেট সিটি কর্পোরেশন এলাকায় সার্বজনীন আয়োজনে ৫০টি ও পারিবারিক আয়োজনে ১৫টি পূজো অনুষ্ঠিত হবে। সিলেট সদর উপজেলায় সার্বজনীন ৫৮টি। দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় ২১টি ও পারিবারিক ১টি। গোলাপগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন ৫৮টি ও পারিবারিক ৩টি। বালাগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন ৩০টি ও পারিবারিক ২টি। কানাইঘাট উপজেলায় সার্বজনীন ৩৮টি। জৈন্তাপুর উপজেলায় সার্বজনীন ২৩টি। বিশ্বনাথ উপজেলায় সার্বজনীন ২৩টি ও পারিবারিক ২টি। গোয়াইনঘাট উপজেলায় সার্বজনীন ৩৬টি। জকিগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন পূজা ৪টি। বিয়ানীবাজার উপজেলায় সার্বজনীন পূজা ৩৭টি, পারিবারিক ৯টি। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন ২৭টি। ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন ৩৮টি । ওসমানীনগর উপজেলায় সার্বজনীন পূজা ২৭টি ও পারিবারিক ৮টি পূজা অনুষ্ঠিত হবে।সাধারণত আশ্বিন মাসের শুক্ল পক্ষের ষষ্ঠ থেকে দশম দিন পর্যন্ত শারদীয়া দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়।এই পাঁচটি দিন যথাক্রমে মহাষষ্ঠী, মহাসপ্তমী, মহাঅষ্টমী, মহানবমী ও বিজয়াদশমী নামে পরিচিত।

 

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ