সরকারের পছন্দের লোকদের পদোন্নতি দেয়ার হিড়িক: রিজভী

প্রকাশিত: ১১:০২ অপরাহ্ণ, জুন ৯, ২০২০

সরকারের পছন্দের লোকদের পদোন্নতি দেয়ার হিড়িক: রিজভী

অনলাইন ডেস্ক :; যুগ্ম-সচিব পদে পদোন্নতির ঘটনাকে সম্পূর্ণভাবে সরকারের রাজনৈতিক স্বার্থে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

মঙ্গলবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, বাংলাদেশের এই দুর্যোগ করোনাকালেও চলছে মহাসমারোহে একদলীয় শাসনকে চূড়ান্ত রূপ দেয়ার আয়োজন। সরকার মনে হয় এই মহাঅস্থিরতায় ভুগছে। সে জন্য নিজেদের পছন্দের লোকদেরকে পদোন্নতি দেয়ার হিড়িক চালাচ্ছে। গত কয়েকদিন আগে ১২৩ জন উপ-সচিবকে যুগ্ম-সচিব পদে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে। এই পদোন্নতি সম্পূর্ণভাবে রাজনৈতিক স্বার্থে। এই ঘোর দুর্দিনে পদ না থাকা সত্ত্বেও পদোন্নতি দেয়ায় এটা সুপ্রমাণিত, সরকার জনগণের বাঁচা-মরাকে তোয়াক্কা করে না। শুধু ক্ষমতাকে অনিশ্চয়তার হাত থেকে বাঁচানোর জন্য যত ধরনের স্বৈরাচারী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা দরকার তারা সেটিই করছে।

তিনি বলেন, গত শুক্রবার সরকারি ছুটির দিনে যুগ্ম-সচিব পদোন্নতির আদেশ দেয়াটাও নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। পদ নেই, তবু পদোন্নতি চলছে আলোক গতিতে। পর্যাপ্ত পদ থাকায় বেশিরভাগ কর্মকর্তাকেই আগের পদে থাকতে হবে বলে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এই পদোন্নতিপ্রাপ্তদের মধ্যে আছেন, চারজন মন্ত্রীর একান্ত সচিব ও ছয়জন জেলা প্রশাসকসহ আওয়ামী ঘনিষ্ঠরা।

২০০৯ সালে সরকার ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকে দলীয় বিবেচনায় ‘ঢালাওভাবে’ নিয়োগ ও পদোন্নতি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, করোনা মহামারীতে দেশে লাশের সারি দীর্ঘ হলেও সরকারের সেদিকে কোনো ভ্রূক্ষেপ নেই। তারা গদি কীভাবে রক্ষা হবে, নব্য বাকশালী শাসন কীভাবে শক্তিশালী হবে সেদিকেই এগিয়ে যাচ্ছে। অনেক মেধাবী কর্মকর্তা যোগ্যতা থাকার পরও তাদের পদোন্নতি হয়নি। কুষ্ঠিনামা যাচাই করে শুধু তাদেরকেই পদোন্নতি দেয়া হচ্ছে, যারা ক্ষমতাসীন দলের সঙ্গে নানাভাবে যুক্ত।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ