সিংচাপইড় ও নোয়ারাই ইউপি নির্বাচন : কে হাসছেন বিজয়ের হাসি?

প্রকাশিত: ৩:৩২ অপরাহ্ণ, জুন ২১, ২০২১

সিংচাপইড় ও নোয়ারাই ইউপি নির্বাচন : কে হাসছেন বিজয়ের হাসি?

ছাতক প্রতিনিধি :: প্রথম ধাপে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ও সিংচাপইড় ইউনিয়ন পরিষদে সোমবার (২১ জুন) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। তবে ভোট কেন্দ্রে পুরুষের চেয়ে নারীদের উপস্থিত দ্বিগুণ। আনন্দ উদ্দীপনা নিয়ে নারীরা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে কেন্দ্র এসেছেন। প্রার্থীদের হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে জয়-পরাজয় নির্ধারিত হবে। দু’টি ইউনিয়নেই দ্বি-মুখী লড়াই হবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

সকালে ছাতক উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের ৯৩ নং মহদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রের প্রাঙ্গণে গিয়ে দেখা যায়, পুরুষের চেয়ে নারীর উপস্থিতি সংখ্যা দ্বিগুণ। দীর্ঘ লাইন ধরে নারীরা ভোট দেয়ার অপেক্ষা রয়েছেন।ভোট কেন্দ্রে আসা কয়েকজন নারী ভোটার বলেন, লাইনে দাঁড়িয়ে কষ্ট সহ্য করে ভোট দিচ্ছি। কিন্তু পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারব সেটা ভেবে এক ধরনের শান্তি পাচ্ছি।ভোট কেন্দ্রে আসা খায়রুন নেসা বলেন, ‘ছোট তিন মাসের ছেলেকে বাসায় তার খালার কাছে রেখে ভোট কেন্দ্রে এসেছি। পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারব সেই জন্য খুব আনন্দিত।’ভোট দেয়া শেষে হালিমা বেগম নামের আরেক নারী বলেন, ‘পছন্দের চেয়ারম্যান প্রার্থীকে ভোট দিয়েছি। খুব ভালো লাগছে আশা করি আমি যোগ্য ব্যক্তিকে ভোট দিয়েছি, আর তিনিই নির্বাচিত হয়ে আমাদের পাশে থাকবেন।

ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়নের ভোট গ্রহণ চলছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা বাড়তে শুরু করছে।নোয়ারাই ইউনিয়নের স্থানীয় বাসিন্দা শামিম আহমদ বলেন, ‘সকাল থেকে এখন ভোট কেন্দ্রে ভোটারের সংখ্যা বেড়েছে। যেহেতু ৪টা পর্যন্ত ভোট দেয়া যাবে তাই ভোটাররা তাদের কাজ শেষ করে কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিবেন।’

সিংচাপইড় ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে সাহাব উদ্দিন মো. সাহেল দলীয় নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে প্রচারণায় রয়েছেন। এর আগেও দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে নির্বাচন করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদটি পুনরুদ্ধার করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন সাহাব উদ্দিন মোহাম্মদ সাহেল। এদিকে, বর্তমান চেয়ারম্যান মোজাহিদ আলী মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে লড়ছেন। বিগত উপ-নির্বাচনে আনারস প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। এ নির্বাচনেও পদটি ধরে রাখতে চান মুজাহিদ। এছাড়াও আনোয়ার হোসেন (লাঙ্গল), সায়েম আহমদ (আনারস), রাসেল মিয়া (চশমা) ও ফারুক মিয়া (রজনীগন্ধা) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ৫১ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১১ জন প্রার্থী প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে যাচ্ছে। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৬ হাজার ৫৪৯ জন।

এদিকে, নোয়ারাই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী রয়েছেন ৫ জন। এখানে, বর্তমান চেয়ারম্যান দেওয়ান পীর আব্দুল খালেক রাজা চশমা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে প্রচারণায় রয়েছেন। বিগত নির্বাচনেও চশমা প্রতীক নিয়ে তিনি বিজয়ী হয়েছিলেন। এ নির্বাচনে পদটি ধরে রাখতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। এ ইউনিয়নে আ.লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেব সাবেক চেয়ারম্যান আফজাল আবেদীন আবুল নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন। বিগত নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান দেওয়ান পীর আব্দুল খালেক রাজার কাছে হেরে যান তিনি। চেয়ারম্যান পদটি পুনরুদ্ধার করতে চান তিনি। এছাড়া আ.লীগের আরেক নেতা সামছুর রহমান ঘোড়া প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বিএনপি স্থানীয় সরকারের নির্বাচন বর্জন করলেও এ ইউনিয়নে বিএনপি নেতা মোশাররফ হোসেন আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নাসির উদ্দিন মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন। এছাড়া এ ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ৪২ জন ও নারী সদস্য পদে ১৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন। এ ইউনিয়নের মোট ভোটার ২৬ হাজার ১৬৫জন।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থীদের মধ্যে কে হাসছেন বিজয়ের হাসি তা দেখার অপেক্ষায় রয়েছেন ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ।

উল্লেখ্য, গত ১১ এপ্রিল এসব ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও করোনা মহামারির কারণে নির্বাচন পিছিয়ে দেয়া হয়েছিল। আজ সোমবার উপজেলার নোয়ারাই ও সিংচাপইড় ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ