সিলেটে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে পালিত হচ্ছে পবিত্র লাইলাতুল কদর

প্রকাশিত: ১১:৩১ অপরাহ্ণ, মে ৯, ২০২১

সিলেটে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে পালিত হচ্ছে পবিত্র লাইলাতুল কদর

নিজস্ব প্রতিবেদক :: আজ পবিত্র লাইলাতুল কদর। নফল নামাজ, কোরআন তেলাওয়াত ও জিকির-আসগারের মধ্য দিয়ে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে সারা দেশের ন্যায় সিলেটেও পালিত হচ্ছে মহিমান্বিত এই রজনী। সিলেট হযরত শাহজালাল (রহ:) মাজার মসজিদসহ বিভিন্ন জায়গায় পবিত্র এ রজনীতে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা দেশ ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনায় মহান আল্লাহর দরবারে বিশেষ মোনাজাতও করছেন।
রোববার বাদ এশা হযরত শাহজালাল (রহ:) মাজার মসজিদে বিশেষ দোয়া পরিচালনা করা হয়। এসময় ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা অংশ নেন। দোয়া পরিচালনা করেন দরগাহ মসজিদের ইমাম ও খতিব মুফতি আসজাদ আহমদ। এসময় তিনি করোনা ভাইরাসসহ সব ধরনের বিপদ থেকে মুসলিম জাহানকে রক্ষা করতে আল্লাহ তা’য়ালার দরবারে ফরিয়াদ জানান।

মাহে রমজানের এ রাতেই মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর ওপর পবিত্র কোরআন নাজিল হয়। তাই এ রাত সমগ্র মুসলিম উম্মাহর কাছে এক পুণ্যময় ও মহিমান্বিত রাত হিসেবে বিবেচিত। ইসলাম ধর্মে এ রাতের ইবাদতকে বিশেষ তাৎপর্যময় হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

‘শবে কদর’ হলো একটি ফারসি শব্দ। যার অর্থ মর্যাদার রাত বা ভাগ্যরজনী। রমজান মাসের শেষ ১০ দিনের যে কোনও বেজোড় রাতে হতে পারে শবে কদর। এ রাতকে বিশেষ মর্যাদা দিয়ে রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘তোমরা রমজানের শেষ দশকের বিজোড় রাতগুলোতে শবে কদর সন্ধান করো।’ (মুসলিম)।

কদরের রাতে মানবজাতির ভাগ্য পুনর্নির্ধারণ করা হয়। তাই লাইলাতুল কদরের রাতটি মুসলিম সম্প্রদায়ের কাছে অনেক ফজিলতপূর্ণ ও বরকতময়। পবিত্র কোরআনে এ রাতকে হাজার মাসের চেয়ে শ্রেষ্ঠ রাত ঘোষণা করেছেন মহান আল্লাহ। এই রাতকে কেন্দ্র করে ‘কদর’ নামে একটি সুরাও নাজিল হয়।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ