সিলেটে শিক্ষার্থীদের সাথে বিমাতাসুলভ আচরণ ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের

প্রকাশিত: ৯:৩৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ৭, ২০২০

সিলেটে শিক্ষার্থীদের সাথে বিমাতাসুলভ আচরণ ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের

নিজস্ব প্রতিবেদক : সর্বনাশা করোনাকালেও শিক্ষার্থীদের সাথে বিমাতাসুলভ আচরণ করলো সিলেটের একটি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল। কর্তৃপক্ষের এমন আচরণে সংক্ষুব্ধ অভিভাবকরাও। প্রতিকার চাইতে গিয়েও নমনীয় হয়নি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এমন অভিযোগ স্কুলের একজন অভিভাবকের।

সংক্ষুব্ধ ওই অভিভাবক জানান, বিদ্যালয়টিতে পরীক্ষার প্রকাশিত ফলাফলে নিজ ছেলের ফলাফল স্থগিত রাখা হয়েছে। তিনি টিউশন ফি প্রদান করেননি ফলে শিক্ষার্থীর উপর এই শাস্তির খরগ। শুধু ওই অভিভাবকের সন্তান একা নয়-এরকম অচরণের শিকার ১৪৮ জন শিক্ষার্থী। রোববার সিলেটের বৃটিশ বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে প্রকাশিত ফলাফলে দেখা যায়, ইংলিশ মিডিয়ামের ২৬১ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১১৩ জনের ফলাফল দিয়েছে। বাকি ১৪৮ জনের ফলাফল স্থগিত করা হয়। এতে অভিভাবকরা অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. কয়ছর জাহানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, অনেক শিক্ষার্থীর ৪-১৮ মাস পর্যন্ত টিউশন ফি বাকি। প্রতিষ্ঠানের ৫০ লাখ টাকা বকেয়া। অনেকেই বিপুল পরিমাণ টাকা বকেয়া ফেলে রেখে বাচ্চা নিয়ে গেছেন অন্য স্কুলে। তিনি বলেন, এই করেনাকালীন সময়ে প্রতিষ্ঠানর শিক্ষকসহ অন্যান্য কর্মচারীর বেতন দেওয়া মুষ্কিল হয়ে পড়েছে।

এরই মধ্যে কেউ কেউ করোনার সুযোগ নিয়ে টিউশন ফি দিতে চান না। যা দুঃখজনক। তিনি বলেন, অনেককে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বকেয়া পরিশোধের কথা বলা হয়েছে। আবার কয়েক জনকে বিশেষ বিবেচনায় টিউশন ফি ৫০ ভাগ ছাড়ও দেওয়া হয়েছে। কয়সর জাহান বলেন, আমাদের মধ্যে মানবিক বিবেচনা অবশ্যই আছে। কিন্তু বিপুল পরিমাণ বকেয়া রেখে প্রতিষ্ঠান চালান মুষ্কিল।

স্কুলের সাধারণ অভিভাবক প্রতিনিধি অ্যাডভোকেট আব্দুল মুকিত অপি ও নারী অভিভাবক প্রতিনিধি স্নিগ্ধা জাহাঙ্গীর ২৬ জুন লিখিতভাবে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. কয়ছর জাহানের কাছে করোনাকালীন চার মাসের টিউশন ফি অর্ধেক হারে গ্রহণ ও ফি পরিশোধ করা ও নির্ধারিত সময় কিছুটা বৃদ্ধির অনুরোধও জানান। এতে কোনো সমাধান না হলে স্কুল অভিভাবক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মাহবুব চৌধুরীসহ বেশ কয়েকজন অভিভাবক সদস্য কয়ছর জাহানের সঙ্গে দেখা করে ফি পরিশোধ না করা শিক্ষার্থীদের ফলাফল প্রকাশ করার অনুরোধ জানালেও কোনো প্রতিকার হয়নি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ