সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চান শমসের জামাল

প্রকাশিত: ৪:৩৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৫, ২০২১

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চান শমসের জামাল

অনলাইন ডেস্ক: সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের হয়ে দলীয় প্রতীক নিয়ে লড়াই করতে চান শমসের জামাল। দীর্ঘদিন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকা শমসের জামাল দলের দুর্দিনের ছিলেন আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে অটল। আওয়ামী পরিবারের সদস্য শমসের জামালের রাজনৈতিক হাতেখড়ি তার পরিবার থেকে। পিতা সিলেট জেলা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও মাতা ছিলেন সিলেট জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভানেত্রী। পরিবার থেকে মুজিব আদর্শে গড়ে উঠা শমসের জামাল এবার নৌকার মাঝি হয়ে সেবা করতে চান সিলেট-৩ আসনের জনগণের।

উল্লেখ্য সিলেট-৩ আসনের এমপি মাহমুদুস সামাদ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে শূন্য হয় তার আসন। এই আসনে এবার হবে উপ-নির্বাচন।

রাজনীতিতে নিজের সম্পৃক্ততাঃ
আওয়ামী পরিবারে জন্ম হওয়ার কারনে শৈশবেই জাতির জনকের আদর্শ ও আওয়ামী রাজনিতীতে দীক্ষা। ১৯৮৪ সালে সিলেট এম.সি.কলেজে ছাত্রলীগের সাধারণ সদস্য হিসাবে যোগদান এবং ছাত্রলীগের মিছিল সমাবেশে সক্রিয় অংশগ্রহণ। সিলেট এর স্থানীয় ও জাতীয় সকল নির্বাচনে নৌকার পক্ষে সক্রিয় অংশগ্রহণ। যার ফলে আওয়ামী বিরোধী অপশক্তি কতৃক তাতিপাড়াস্থ বাসবভনে বার-বার হামলা। ১৯৯৪ সালে চাকুরীতে যোগদান। চাকুরী থাকা অবস্থায়ও আওয়ামী রাজনীতিতে সক্রিয় অংশগ্রহণ এবং পরবর্তীতে চাকুরী ছেড়ে ২০১৬ ইং সালের ৩রা এপ্রিল আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সদস্য পদ লাভ করেন।

শমসের জামাল এর সংক্ষিপ্ত জীবন বৃত্তান্তঃ
নামঃ শমশের জামাল।
জন্মঃ ১লা জানুয়ারি ১৯৬৮ইং।
শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ বি.এস.এস.(অনার্স), এম.এস.এস.(অর্থনীতি)।
পেশাঃ সাবেক ব্যাংক ম্যানেজার (প্রাইম ব্যাংক)। বর্তমানেঃ ব্যবসা।
পরিচালক, সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি।
পিতাঃ বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম এনামুল হক। প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সিলেট জেলা ছাত্রলীগ, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সহ-সভাপতি সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ। সিলেট গুলশান সেন্টারে গ্রেনেড হামলায় আহত হোন।
মাতাঃ সৈয়দা জেবুন্নেছা হক (সাবেক এম.পি.), মহিলা সম্পাদিকা (১৯৬৬ইং), প্রতিষ্ঠাতা সভানেত্রী সিলেট জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ, সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। বেগম রোকেয়া পদক প্রাপ্ত। নিজ বাস ভবনে গ্রেনেড হামলায় আহত হোন।

পরিবারের সদস্যদের রাজনৈতিক সম্পৃক্ততাঃ ভাইবোনসহ পরিবারের সকল সদস্য আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত।

বড় বোন নাজমা হোসেন যুক্তরাজ্য মহিলা আওয়ামীলীগ এর কোষাধ্যক্ষ। মেঝ বোন সালমা সুলতানা, সিলেট জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদিকা। ছোট বোন ফাহিমা সুলতানা বার্মিংহামে মহিলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক।
ভাই শমশের রাসেল চাকুরীজীবি, সাংগঠনিক সম্পাদক বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদ, সিলেট মহানগর শাখা। সেইসাথে আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত।

অন্যান্য ক্ষেত্রে অবস্থানঃ
চাকুরী ক্ষেত্রে, ক্রীড়াক্ষেত্রে, ব্যবসা ক্ষেত্রে আওয়ামী ঘরনার লোকদের প্রতিষ্ঠিত করাই ছিল তার মুল লক্ষ্য। সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থা, সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা, সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি, সিলেট রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সহ অন্যান্য আরও অনেক প্রতিষ্ঠানে আওয়ামী ঘরনার লোকদের প্রতিষ্ঠায় তিনি ছিলাম সক্রিয়।

উল্লেখ্য সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েসের মৃত্যুতে সিলেট – ৩, আসনটি শূন্য ঘোষনা করা হয়েছে। দক্ষিন সুরমা , বালাগন্জ ও ফেঞ্চুগঞ্জ তথা সিলেট – ৩ নির্বাচনি এলাকায় উন্নয়ন অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ একজন পরিক্ষীত , ত্যাগী, নির্ভরযোগ্য , বিশ্বস্হ , দায়িত্ববান , প্রতিশ্রুতিশীল , অভিজ্ঞ ,কঠোর পরিশ্রমী সংগঠক ও কর্মীবান্ধব নেতা শমসের জামালের মনোনয়ন প্রত্যাশাকে যথার্থই মনে করে আপনাদের সমর্থন , সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করছেন তিনি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
     12
17181920212223
24252627282930
31      
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ