সুনামগঞ্জে নদী পথে চাঁদাবাজি বন্ধে প্রশাসনের সহযোগিতা চান শ্রমিকরা

প্রকাশিত: ১০:০২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯

সুনামগঞ্জে নদী পথে চাঁদাবাজি বন্ধে প্রশাসনের সহযোগিতা চান শ্রমিকরা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ::: সুনামগঞ্জের সুরমা নদী পথে চাঁদাবাজি বন্ধে প্রশাসনের সহযোগিতা চান শ্রমিকরা। বাংলাদেশ কার্গোট্রলান বাল্কহেড শ্রমিক ইউনিয়নের নবগঠিত সুনামগঞ্জ জেলা শাখা কমিটির পরিচিতি সভা ও কার্যালয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এই দাবি জানান শ্রমিকরা।

বুধবার (১১ ডিসেম্বর) বিকেলে জামালগঞ্জের লালপুর বাজারে অনুষ্ঠিত সভায় ‘নদী পথে নিরাপদ যাতায়াত’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন নবগঠিত জেলা কমিটির সভাপতি মো. হাবিবুর রহমান।

জেলা কমিটির উপদেষ্টা তুহিন আলমের সার্বিক সহযোগিতায় ও জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলমের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ কার্গোট্রলান বাল্কহেড শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রী সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর আলম বেপারী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইউসুফ আল-আজাদ, লালপুর বাজারের ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক, স্থানীয় ইউপি সদস্য শুক্কুর আলী প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, এদেশে শ্রমিকের ন্যায্য মজুরি কখনো দেয়া হয়না। নদী পথে শ্রমিকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়তই চলাচল করছেন। সুনামগঞ্জের বিভিন্ন নৌ-পথে ইজারার নামে টোল ও ট্যাক্স আদায়ের করছে চাঁদাবাজরা।

ছাতক থেকে ও তাহিরপুর থেকে রয়েলিটিকৃত বালু-পাথর বুঝাই নৌকা চলাচলে পথে পথে চাঁদা দিতে হয়। না দিলে শ্রমিকরা মারধরের শিকার হচ্ছেন উল্লেখ করে তারা এই অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন।

শ্রমিকরা জানান, অতীতে এই নদী পথে রাতেও চলাচলে কোন সমস্যা হতো না। এখন দিনের বেলায় চলাচলে জীবনের নিরাপত্তা নেই। নদীতে চলাচলে চাঁদাবাজদের এই চাঁদাবাজি বন্ধে প্রশাসনের সহযোগিতা না পেলে নৌশ্রমিকরা নদীপথে অনির্দিষ্ট কালের জন্য নৌ-ধর্মঘট করবে বলেও হুমকি দেন শ্রমিকরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আমাদের ফেইসবুক পেইজ