স্বামীকে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যা, শিপার স্বীকারোক্তি : ছাত্রদল নেতা মাহির পলাতক ! (ভিডিও)

প্রকাশিত: ১০:১৩ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৪, ২০২১

স্বামীকে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যা, শিপার স্বীকারোক্তি : ছাত্রদল নেতা মাহির পলাতক ! (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক :: পরকীয়া প্রেমিকার সাথে অ্যাডভোকেট আনোয়ারের টাকা- এই দুই লোভের বশে কথিত খালাতো বোনকে নিয়ে ফন্দি আঁটেন ছাত্রদল নেতা শাহজাহান চৌধুরী মাহি। এরপর সুক্ষ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন।

দশটি ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে ডায়াবেটিস আক্রান্ত আনোয়ারকে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হয়। একসময় ডায়াবেটিস নীল’ হয়ে চীরতরে পাড়ি জমান জীবনের ওপারে। বাস্তবায়ন হয় এক নিষ্ঠুর হত্যাকান্ডের চিত্রনাট্য।

রিমান্ডে পাওয়া তথ্য আর রোব্বার আইনজীবী আনোয়ারের স্ত্রী শিপার দেয়া আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্ধী সূত্রে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন এসএমপির ডিসি উত্তর আজবাহার আলী শেখ।

জানা গেছে, গত ৩০ এপ্রিল সেহরি খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন আনোয়ার হোসেন। পরদিন বিকেল ৩টার দিকে স্ত্রী শিপা বেগম সবাইকে জানান, আনোয়ার ডায়াবেটিস নীল হয়ে মারা গেছেন। অ্যাডভোকেট আনোয়ারের বাড়ি সিলেট সদর উপজেলার শিবেরবাজারের দীঘিরপাড় গ্রামে। এদিকে স্বামীর মৃত্যুর মাত্র ১০ দিনের মাথায় খালাতো ভাই কানাইঘাটের (বর্তমানে নগরীর উপশহর) শাহজাহান চৌধুরী মাহিকে বিয়ে করেন।

এতে অ্যাডভোকেট আনোয়ারের পরিবারের সদস্যদের সন্দেহ গাঢ় হয়। তারা ১ জুন সিলেটের অতিরিক্ত চিফ মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যা মামলার আবেদন করেন। আদালত কোতোয়ালি থানার ওসিকে ৩০২ ধারায় মামলা রুজুর নির্দেশ দেন। ৬ জুন শিপার ৫ দিনের রিমা- মঞ্জুর করেন আদালত।

জানা গেছে, রিমান্ডে এই হত্যাকা- নিয়ে যেসব তথ্য পাওয়া যায়, তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, অ্যাডভোকেট আনোয়ারের টাকা। তার সম্পদের উপর লোভ ছিল শিপার খালাতো ভাই ছাত্রদল নেতা শাহাজাহান চৌধুরী মাহির। তাই সে শিপার সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তোলে এবং এক পর্যায়ে তাকে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেয়ার পরিকল্পনা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করে।

উল্লেখ্য, অ্যাডভোকেট আনোয়ারের মৃত্যুর ঘটনায় হত্যা মামলা দায়েরের পর থেকেই এই ছাত্রদল নেতা লাপাত্তা। তাকে গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে কোতোয়ালী থানা পুলিশের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র।

 

আমাদের ফেইসবুক পেইজ