৬ দফা দাবিতে সিলেটে বাম জোটের সমাবেশ

প্রকাশিত: ১০:৫০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১২, ২০২১

৬ দফা দাবিতে সিলেটে বাম জোটের সমাবেশ

অনলাইন ডেস্ক :: করোনায় লকডাউন চলাকালে শ্রমজীবী হতদরিদ্র মানুষের জন্য এক মাসের খাদ্য ও নগদ ৫ হাজার টাকা প্রদান, করোনা মহামারীকে জাতীয় দুর্যোগ ঘোষণা করে সমন্বিত জাতীয় উদ্যোগ গ্রহণ করাসহ ৬ দফা দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের দেশব্যাপী মানববন্ধন বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সিলেট জেলা শাখার উদ্যোগে আজ সোমবার (১২ এপ্রিল) দুপুর সাড়ে বারটায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক ও বাম জোট সিলেটের সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন সুমনের সভাপতিত্বে ও বাসদ (মার্কসবাদী) সিলেট জেলার সদস্য মোখলেছুর রহমানের পরিচালনায় বক্তব্য দেন বাসদের জেলা সমন্বয়ক আবু জাফর, বাসদ (মার্কসবাদী) সিলেট জেলার সদস্য অ্যাডভোকেট হুমায়ুন রশিদ সোয়েব, বাসদ সিলেট জেলার সদস্য প্রণব জ্যোতি পাল, সিপিবি সিলেট জেলার নেতা মো. নাবিল এইচ প্রমুখ।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের দম্ভ, আত্মম্ভরিতা ও অবহেলার কারণে আজ দেশে করোনা মহামারীতে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত ও মৃত্যুবরণ করছে। ৫/৬ হাসপাতাল ঘুরেও ভর্তি হতে না পেরে রাস্তায় মানুষের মৃত্যু ঘটছে। চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবায় দুর্নীতি-লুটপাটের কারণে স্বাস্থ্যব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। মিঠু সিন্ডিকেট, সাহেদ, সাবরিনাদের বিচার হয়নি। স্বাস্থ্যখাতে জনবল নিয়োগে দুর্নীতি ব্যাপক বেড়েছে। ভোট ডাকাতির বর্তমান সরকার যেহেতু জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি ফলে জনগণের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, খাদ্য, কাজসহ কোন অধিকার বাস্তবায়নে দায়বোধ করে না।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার একদিকে লকডাউন ঘোষণা করছে অন্যদিকে গার্মেন্টসসহ কলকারখানা চালু রেখে, দোকান-শফিংমল খোলা রেখে সংক্রমণ ছড়িয়ে দিচ্ছে। হতদরিদ্রদের খাদ্য, চিকিৎসা ও নগদ অর্থ না দিলে যে লকডাউন কার্যকর হবে না তা বার বার আমরা বলা সত্ত্বেও সরকার কর্ণপাত না করে লক্কর ঝক্কর লকডাউনে জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে গাড়িভাড়া দ্বিগুন করে জীবন যাত্রার ব্যয় বাড়িয়ে জনদুর্ভোগ বাড়িয়ে চলেছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, একদিকে শ্রমজীবী মানুষের দুর্ভোগ বাড়ছে অন্যদিকে গার্মেন্টস মালিকেরা গত বছরেও হাজার হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা নিয়েছে ঋণ পরিশোধের সময় বাড়িয়ে নিয়েছে। এবারেও তারা নতুন করে ১০ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দাবি করছে। কিন্তু শ্রমিকেরা কিছুই পাচ্ছে না, গত বছর বেতনের ৪০% দেয়া হয়নি। অনেক শ্রমিককে চাকুরিচ্যুত করা হয়েছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, করোনা মোকাবেলায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ও দপ্তরের সমন্বয়হীনতা এবং জনগণের উপর নির্ভর না করে সরকারের আমলা নির্ভরতা সংকটকে ক্রমাগত বাড়িয়ে তুলছে। সরকারের গঠিত টেকনিক্যাল কমিটির পরমার্শও সরকার শুনে না।

নেতৃবৃন্দ বলেন, বাম জোট শুরু থেকেই সকল রাজনৈতিক দল, চিকিৎসক, বিশেষজ্ঞ, ভাইরোলজিস্ট, জনপ্রতিনিধিসহ সকলের মতামত গ্রহণ করে করোনা মোকাবেলায় সমন্বিত জাতীয় উদ্যোগ গ্রহণের দাবি জানিয়ে আসছিল কিন্তু সরকার কর্ণপাত করেনি। আমরা পুনরায় করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় সমন্বিত জাতীয় উদ্যোগ গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারি হাসপাতালসমূহে বেড, আইসিইউ, ভেন্টিলেটর এবং হাইফ্লো অক্সিজেন ক্যানুলাসহ কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ ব্যবস্থাও চালু করতে হবে। বেসরকারি হাসপাতালসমূহে করোনা চিকিৎসা অত্যন্ত ব্যয়বহুল ফলে সাধারণ মানুষ সেখানে চিকিৎসা নিতে পারে না। বেসরকারি হাসপাতালগুলো অধিগ্রহণ করে করোনা চিকিৎসার দাবি আমরা জানাচ্ছি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
  12345
27282930   
       
28      
       
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ