কানাইঘাট থানায় ২৪ ঘন্টার মধ্যে ডাকাত সহ লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার করল পুলিশ

প্রকাশিত: ১:৪৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩, ২০২০

কানাইঘাট থানায় ২৪ ঘন্টার মধ্যে ডাকাত সহ লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার করল পুলিশ

 নিজস্ব প্রতিনিধি : গত ৩১/০৭/২০২০ইং তারিখ রাত অনুমান ১০.৩০ ঘটিকার সময় কানাইঘাট থানাধীন ০৯নং রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের অন্তর্গত পারকুল সাকিনস্থ সৌদি প্রবাসী লুৎফুর রহমান এর মা তাহেরা বেগম (৫৫) সহ তাহার পরিবারের লোকজন বসতঘরের পশ্চিম ভিটির ০৪ কক্ষ বিশিষ্ট পাকা বিল্ডিংয়ের দরজা-জানালা বন্ধ করিয়া বারান্দায় কেচি গেইটে তালা দিয়া উত্তর-পূর্ব পাশের কক্ষে ঘুমাইয়া পড়ে। ঐ দিন দিবাগত রাত অর্থাৎ ০১/০৮/২০২০ইং তারিখ রাত অনুমান ০৩.০০ ঘটিকার সময় অজ্ঞাতনামা অনুমান ৭/৮ জন লোক দা, ডেগার, ছোরা, লোহার পাইপ ইত্যাদি দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হইয়া বারান্দার কেচি গেইটের তালা ভাঙ্গিয়া কৌশলে বাদীনির বসত ঘরের কক্ষে প্রবেশ করে। ঘরের ভেতরে নড়াচড়ার শব্দ শুনিয়া বাদীনি ঘুম হইতে জাগিয়া উঠিয়া তাহার ঘরে থাকা বৈদ্যুতিক বাতি জ্বালাইলে বাদীনিসহ পরিবারের অন্যান্য লোকজন ঘরের কক্ষের মধ্যে ০৪ জন অজ্ঞাতনামা লোক দেখিতে পায়। তখন ০২ (দুই) জন লোক দা ও ছোরার ভয় দেখাইয়া বাদীনির পরিবারের লোকজনদের চুপ থাকিতে বলে। অপর ০২(দুই) জন লোক মুখোশ পড়া ছিল। অজ্ঞাতনামা লোক বাদীনিসহ তাহার পুত্রবধূ এবং নাতিনদেরকে কাপড় দিয়া চোখ মুখ বাঁধিয়া ফেলে। ঐ সময় বাদীনির পুত্রবধূ শুকুরা বেগম চিৎকার দিতে থাকলে তাহাদের মধ্যে ০১জন লোক তাহার হাতে থাকা লোহার রড দিয়া শুকুরা বেগমের মাথায় আঘাত করিয়া গুরুতর জখম করে এবং চুপ থাকিতে বলে। ইহাতে তাহারা বুঝিতে পারে যে, তাহাদের বাড়িতে ডাকাত ঢুকিয়াছে। ঐ সময় ডাকাতরা মৃত্যুর ভয় দেখাইয়া স্বর্ণ ও টাকা পয়সা বাহির করিয়া দেওয়ার জন্য বলিলে বাদীনির পুত্রবধূ শুকুরা বেগম বিছানার নিচ হইতে কাঠের আলমারীর চাবি বাহির করিয়া দেন। তখন ০১ জন ডাকাত আলমারীর তালা খুলিয়া আলমারী হইতে নগদ ৪০,০০০/- (চল্লিশ হাজার) টাকা, অনুমান ৫ ভরি ১৫ আনা ওজনের (গলার হার, কানের দুল, চেইন, আংটি ও রিং) বিভিন্ন আইটেমের স্বর্ণালংকার, ০১টি স্যামসাং ব্যবহৃত J-7(3) মোবাইল, ০১টি ব্যবহৃত NOKIA মোবাইল ০১টি কালো রংয়ের ট্যাব সহ সর্বমোট ৪,১৮,২০০/- (চার লক্ষ আঠারো হাজার দুইশত) টাকার মালামাল ডাকাতি করিয়া নিয়া যায়। বাকী ডাকাতরা বাড়ীর বাহিরে অবস্থান করে মর্মে বুঝিতে পারে। তাৎক্ষণিক ডাকাতি ঘটনার সংবাদ প্রাপ্তির সাথে সাথে সিলেট জেলার পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম মহোদয় ডাকাতির সাথে জড়িত প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেফতার সংক্রান্তে বিশেষ নির্দেশনা প্রদান করেন। ঘটনার পরপরই কানাইঘাট থানা পুলিশ একাধিক বিশেষ টিম গঠন করিয়া প্রকৃত অপরাধীদের অনুসন্ধানে ব্যাপক সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা শুরু করে। কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ শামসুদ্দোহা পিপিএম এর নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক (নিঃ)/মোঃ আনোয়ার জাহিদ এবং অত্র মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই(নি:)/মোঃ সনজিত কুমার রায় ও সঙ্গীয় এসআই(নি:)/আবু কাউছার, এসআই(নি:)/স্বপন চন্দ্র সরকার, এএসআই(নিঃ)/মোজাম্মেল হক সহ অন্যান্য অফিসার ও ফোর্স এর অক্লান্ত প্রচেষ্টার ফলে ম্যানুয়াল ও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করিয়া ডাকাতি ঘটনার মাত্র ২৪ ঘন্টার মধ্যে মামলার মূল রহস্য উদঘাটন এবং ঘটনার সহিত জড়িত কতক আসামীদের অবস্থান নির্ণয় করিতে সক্ষম হয়। কানাইঘাট থানা পুলিশ থানার অফিসার ফোর্সের সমন্বয়ে একাধিক টিম গঠন করত: থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান অব্যাহত থাকা অবস্থায় উল্লেখিত ঘটনার আলোকে প্রবাসী লুৎফুর রহমানের মা তাহেরা বেগম (৫৫) থানায় অভিযোগ দায়ের করিলে কানাইঘাট থানার মামলা নং-০১, তারিখ-০২/০৮/২০২০খ্রিঃ, ধারা-৩৯৫/৩৯৭ পেনাল কোড রুজু করা হয়। ইতোমধ্যে কানাইঘাট থানা পুলিশের সাঁড়াশি অভিযানের একপর্যায়ে ডাকাতি ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী (মাষ্টার মাইন্ড) আসামী ১। আলী আহমদ (৩০), পিতা-তেরা মিয়া, সাং-পারকুল, থানা-কানাইঘাট জেলা-সিলেট’কে ইং০২/০৮/২০২০ তারিখ রাত অনুমান ০৩.৩০ ঘটিকায় সময় তাহার বসতঘর হইতে গ্রেফতার করা হয় এবং তাহার বাহির করিয়া দেওয়া ডাকাতি ঘটনায় লুন্ঠিত ১। ৫ ভরি ওজনের বিভিন্ন আইটেমের স্বর্ণালংকার যাহার মূল্য অনুমান ২,৮৭,০০০/- (দুই লক্ষ সাতআশি হাজার) টাকা, ২। সিটি গোল্ডের চেইন ০১টি যাহার মূল্য অনুমান ১,০০০/- (এক হাজার) টাকা, ৩। ০২ টি মোবাইল সেট ও ০১ টি ট্যাব যাহার মূল্য অনুমান ৩১,২০০/-(একত্রিশ হাজার দুইশত) টাকা উদ্ধারপূর্বক জব্দ করা হয়। উক্ত আসামীর দেওয়া তথ্য মতে আসামী ২। আব্দুল লতিফ (৩৯), পিতা-মৃত শফিকুর রহমান সাং-পারকুল, থানা-কানাইঘাট জেলা-সিলেট’কে ইং ০২/০৮/২০২০ তারিখ রাত অনুমান ০৪.০০ ঘটিকায় সময় তাহার বসতঘর হইতে গ্রেফতার করা হয় এবং তাহার বাহির করিয়া দেওয়া ডাকাতি ঘটনায় লুন্ঠিত নগদ ২,০০০/- (দুই হাজার) টাকা উদ্ধার করা হয়। ডাকাতি ঘটনার লুণ্ঠিত সর্বমোট ৪,১৮,২০০/-(চার লক্ষ আঠারো হাজার দুইশত) টাকার মালামালের মধ্যে সর্বমোট ৩,২১,২০০/- (তিন লক্ষ একুশ হাজার দুইশত) টাকার মালামাল উদ্ধার পূর্বক জব্দ করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীদের দেওয়া তথ্য মতে অভিযান পরিচালনা করিয়া ইং০২/০৮/২০২০ তারিখ রাত অনুমান ০৪.৩০ ঘটিকায় সময় আসামী আব্দুর রহমান @ রহমান (২৭), পিতা-মৃত মনির উদ্দিন, সাং-তালবাড়ি লক্ষীপুর পূর্ব, থানা-কানাইঘাট জেলা-সিলেট’কে তাহার বসত ঘর হইতে গ্রেফতার করা হয়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ