ইংল্যান্ডের মাঠে আইরিশদের রেকর্ড গড়া জয়

প্রকাশিত: ৭:৩০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২০

ইংল্যান্ডের মাঠে আইরিশদের রেকর্ড গড়া জয়

স্পোর্টস ডেস্ক :

পল স্টার্লিং ও বালবির্নির জোড়া সেঞ্চুরিতে ইংল্যান্ডের মাঠে সফরকারী দল হয়ে সবচেয়ে বেশি ৩২৮ রান তাড়া করে সাত উইকেটের জয়ের রেকর্ড গড়েছে আয়ারল্যান্ড।

এই জয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ হারলেও দশ পয়েন্ট নিয়ে সুপার লিগের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে আইরিশরা। টানা দুই ম্যাচ জয়ে ২০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ইংল্যান্ড।

মঙ্গলবার সাউদাম্পটনের রোজ বোলে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে অধিনায়ক ইয়ন মরগানের সেঞ্চুরি (১০৪) আর টম বান্ডেল ও ডেভিড উইলির জোড়া ফিফটিতে ৪৯.৫ ওভারে ৩২৮ রানের পাহাড় গড়ে অলআউট হয় ইংল্যান্ড।

রানের পাহাড় ডিঙাতে নেমে বাড়তি সতর্কতায় ইনিংস শুরু করেন দুই ওপেনার পল স্টারলিং ও গ্যারেথ ডেনালি। প্রথম চার ওভারে তারা সংগ্রহ করেন মাত্র ৯ রান। ৮ ওভার শেষে এ দুই ওপেনার স্কোর বোর্ডে যোগ করেন ৪৪ রান। তবে নবম ওভারের শেষ বলে আউট হয়ে ফেরেন গ্যারেথ।

এরপর তিনে ব্যাটিংয়ে নামা অধিনায়ক অ্যান্ডি বালর্বিনিকে সঙ্গে নিয়ে ব্যাটিং তাণ্ডব শুরু করেন পল স্টারলিং। দ্বিতীয় উইকেটে তাড়া গড়েন ২১৪ রানের কার্যকরি জুটি। আর এই জুটিতেই জয়ের স্বপ্ন দেখে আইরিশরা।

৪১.৪ ওভারে দলীয় ২৬৪ রানে আউট হয়ে ফেরেন ওপেনার পল স্টারলিং। তার আগে ১২৮ বলে ৯টি চার ও ৬টি ছক্কার সাহায্যে ১৪২ রান করে ফেরেন এই তারকা ওপেনার।

পল স্টারলিং যখন আউট হন তখন জয়ের জন্য আইরিশদের প্রয়োজন ছিল ৫০ বলে ৬৫ রান। ১০৩ রানে ব্যাটিংয়ে ছিলেন অ্যান্ডি বালর্বিনি। চার নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নামা হ্যারি ট্যাকটরকে সঙ্গে নিয়ে বেশিদূর যেতে পারেননি আইরিশ অধিনায়ক। দলীয় ২৭৯ রানের মাথায় আউট হন বালর্বিনি। তার আগে ১১২ বলে ১২টি চারের সাহায্যে ১১৩ রান করে ফেরেন তিনি।

শেষদিকে জয়ের জন্য ৩৩ বলে আয়ারল্যান্ডের প্রয়োজন ছিল ৫০ রান। কেভিন ওব্রায়েনকে সঙ্গে নিয়ে ৩২ বলে অবিচ্ছিন্ন ৫০ রানের জুটি গড়ে ইনিংস শেষ হওয়ার এক বল আগেই দলের জয় নিশ্চিত করেন হ্যারি ট্যাকটর। মাত্র ১৫ বল খেলে এক চার ও সমান ছক্কায় ২১ রান করেন ওব্রায়েন। আর ২৬ বলে তিনটি চারের সাহায্যে অপরাজিত ২৯ রান করেন হ্যারি।

এর আগে ২০১১ সালের বিশ্বকাপে বেঙ্গালুরুতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩২৯ রান তাড়া করে জয় পেয়েছিল আয়ারল্যান্ড।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ইংল্যান্ড: ৪৯.৫ ওভারে ৩২৮/১০ (মরগান ১০৬, প্যান্ডেল ৫৮, ডেভিড উইলি ৫১, টম কারান ৩৮; ক্রেগ উইং ৩/৫৩)।

আয়ারল্যান্ড: ৪৯.৫ ওভারে ৩২৯/৩ (পল স্টারলিং ১৪২, অ্যান্ডি বালর্বিনি ১১৩, গ্যারেথ ট্যাকটর ২৯*, কেভিন ওব্রায়েন ২১*)।

ফল: আয়ারল্যান্ড ৭ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচ সেরা: পল স্টারলিং (আয়ারল্যান্ড)।

তিন ম্যাচ সিরিজে ইংল্যান্ড ২-১ ব্যবধানে জয়ী।

সিরিজ সেরা: ডেভিড উইলি (ইংল্যান্ড)।