হ্যাকিংয়ের মুখে ১০০ কোটিরও বেশি অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস

প্রকাশিত: ৬:১০ অপরাহ্ণ, মার্চ ৭, ২০২০

হ্যাকিংয়ের মুখে ১০০ কোটিরও বেশি অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস

তথ্য প্রযুক্তি :: অ্যান্ড্রয়েডের নিরাপত্তা আপডেট বিশ্বের ১০০ কোটিরও বেশি অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসকে সুরক্ষা না দেওয়ায় ডিভাইসগুলো (ফোন, ট্যাব ও স্মার্ট টিভি) রয়েছে সুরক্ষা ঝুঁকিতে। এই দুর্বলতার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে হ্যাকাররা ব্যবহারকারীদের তথ্য চুরিসহ মুক্তিপণ দাবি এবং ম্যালওয়্যার হামলা চালাতে পারে।

এই ঝুঁকির মুখে রয়েছে ২০১২ সালে বা এর আগে উন্মোচিত অ্যান্ড্রয়েড ফোনগুলো। এই অপারেটিং সিস্টেমের নির্মাতা গুগল ডিভাইসগুলোর সুরক্ষার বিষয়ে দিতে পারেনি নিশ্চয়তা। এমন মন্তব্যের জন্য টেক জায়ান্ট গুগল বিবিসির যোগাযোগেও সাড়া দেয়নি।

গুগলের নিজস্ব প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিশ্বে মোট অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীর ৪২ দশমিক ১ শতাংশ ৬.০ সংস্করণ বা এর আগের সংস্করণ ব্যবহার করছেন।

আর অ্যান্ড্রয়েড সিকিউরিটি বুলেটিনের তথ্য অনুযায়ী, যে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ২০১৯ সালে এসেছে তাতে ৭.০ এর আগের সংস্করণগুলোর জন্য কোনো নিরাপত্তা ব্যবস্থা যুক্ত করা হয়নি।

আপনার ব্যবহৃত ফোনটি যদি ২ বছরের পুরনো হয় তাহলে নতুন অপারেটিং সিস্টেমে আপডেট করা যাবে কি না যাচাই করে দেখুন। অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ নওগাত ব্যবহারকারীদের যাচাই করার জন্য সেটিংস সিলেক্ট করে সিস্টেম অপশনটি ক্লিক করতে হবে। এরপর সিলেক্ট করতে হবে অ্যাডভান্সড সিস্টেম আপডেট।

যদি আপডেট করতে না পারেন তাহলে আপনার ফোনটিও রয়েছে হ্যাকিংয়ের মুখে। বিশেষ করে আপনার ফোনটি যদি অ্যান্ড্রয়েড ৪ বা এর পুরনো সংস্করণ হয়ে থাকে তবে গুগল প্লে স্টোর ব্যতীত অন্য কোনো উৎস থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করার ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করুন। এছাড়া এসএমএস ও এমএমএস বার্তার ক্ষেত্রেও সতর্কতা অবলম্বন করুন।

ফোনের তথ্য সংরক্ষণের জন্য দুইটি স্থান নির্বাচন করুন। একটি হার্ড ড্রাইভ এবং অন্যটি ক্লাউড সেবায়। এছাড়া সুরক্ষার জন্য ইন্সটল করুন অ্যান্টি-ভাইরাস অ্যাপস।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ