দেড় মাস জামাতে নামাজ পড়ে সাইকেল পাচ্ছে সোনাইমুড়ীর ৪৩ কিশোর

প্রকাশিত: ২:১৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৬, ২০২০

দেড় মাস জামাতে নামাজ পড়ে সাইকেল পাচ্ছে সোনাইমুড়ীর ৪৩ কিশোর

অনলাইন ডেস্ক :: মসজিদে টানা দেড় মাস জামাতে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করে সাইকেল উপহার পাচ্ছে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর ৪৩ শিশু কিশোর।

আগামীকাল শুক্রবার তাদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছে মসজিদ কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, শিশু-কিশোরদের জামাতে নামাজ আদায়ে উৎসাহী করতে ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন করেন সোনাইমুড়ী হামিদিয়া কামিল মাদ্রাসা মসজিদের খতিব মুফতি হুমায়ূন কবির। এতে অর্থায়ন করেছেন স্থানীয় বাসিন্দা ও সমাজসেবক নুরুল ইসলাম নুর।

গত ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এই প্রতিযোগিতা চলে ২০ মার্চ পর্যন্ত। প্রথম পর্বে ৭০ কিশোর নিবন্ধন করে। তাদের মধ্যে ৪৩ জন টানা ৪৫ দিন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ জামাতে আদায় করে।

সে অনুযায়ী প্রতিজন একটি করে বাইসাইকেল পাবেন। তবে নিবন্ধনকারী যারা নিয়মিত জামাতে নামাজ আদায় করতে পারেনি তারাও পাবে সান্তনা পুরস্কার।

নিবন্ধনকারী এক কিশোর বলেন, ‘আমরা এতদিন নামাজ আদায় করেছি। একসঙ্গে সবাই মসজিদে এসেছি। আমার সঙ্গে অনেকের বন্ধুত্বও গড়ে উঠেছে। পুরস্কার হাতে পেলে আরও ভালো লাগবে। তবে এখন থেকে নিয়মিত মসজিদে আসব ইনশাল্লাহ।’

মসজিদের খতিব মুফতি হুমায়ুন কবির বলেন, ‘আমার দীর্ঘদিনের ইচ্ছা ছিল শিশু কিশোরদের মসজিদমুখি করার লক্ষ্যে কিছু একটা করা। শেষ পর্যন্ত সবার প্রচেষ্টায় এমন একটি উদ্যোগ বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হয়েছি। এর ফলে একটি ছেলেও যদি পরবর্তী জীবনে নামাজ আঁকড়ে ধরে তাহলে আমাদের উদ্যোগ সার্থক হবে।’

৪৩ কিশোরকে আগামীকাল শুক্রবার সাইকেল উপহার দেয়া হবে। তবে তাদের মধ্যে পরিবর্তন এসেছে কিনা তা আগামী এক সপ্তাহ নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করবে মসজিদ কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগের ধারণাটি আসে তুরস্কের ইস্তাম্বুলের ফাতিহ অঞ্চলের সুলতান সেলিম মসজিদ কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রথম এ ধরনের উদ্যোগ হতে নেয়া হয়। টানা ৪০ দিন ফজরের নামাজে অংশ নেয়া কিশোরদের সাইকেল ও বিভিন্ন সামগ্রী উপহার দেয় ওই মসজিদ কর্তৃপক্ষ।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ