করোনার সমস্যা জাতীয় দূর্যোগ, ঐক্যবদ্ধভাবেই পরিত্রাণের পথ খুঁজতে হবে

প্রকাশিত: ১:৩৩ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৮, ২০২০

করোনার সমস্যা জাতীয় দূর্যোগ, ঐক্যবদ্ধভাবেই পরিত্রাণের পথ খুঁজতে হবে

রুহুল কুদ্দুস বাবুল :: করোনা সমস্যা জাতীয় দূর্যোগ, ঐক্যবদ্ধভাবেই পরিত্রাণের পথ খুঁজতে হবে। বিচক্ষণতা দূরদর্শিতার অভাবে যা হবার তা তো হয়েই গেছে। এখন পরিত্রাণের সঠিক কাজটি করা দরকার। যেহেতু COVID-19 ভাইরাসটি আমাদের প্রবাসী নাগরিদের মাধ্যমে এসেছে। যে মানুষগুলো সারা দেশে ছড়িয়ে গেছে। এখন একমাত্র পথ তাদের ঠিকানায় গিয়ে খুঁজে বের করে প্রত্যেককে পরীক্ষা করা। যাদের চিহ্নিত করা যাবে তাদের চিকিৎসার আওতায় নিয়ে আসা। তাদের মাধ্যমে সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা আছে তাদেরও পরীক্ষা করা। এটা করতে হবে পদ্ধতি মেনে। চীন, দক্ষিণ কোরিয়া যেভাবে করেছে সেভাবে। এজন্য কঠোর হতে হলে হবেন।
প্রথমেই মানুষকে এ রোগের ভয়াবহতা সম্পর্কে ধারনা দিতে হবে। মানুষকে বুঝাতে হবে তার পরিবার, তার প্রতিবেশি ও দেশকে বাঁচাতে এ সম্পর্কিত সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। নাহলে জীবন জীবিকা সব ১৪ দিন বা ২৮ দিন নয় সারা জীবনের জন্য বন্ধ হয়ে যাবে।
আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনি মাঠে নেমেছে মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সচেতনতা তৈরি করতে, কার্ফিউ মানাতে নয়। করোনার ভয়ে ক্ষিদে নিবারণ হবেনা। যাদের দিন শেষে রোজগারের ক’টি টাকায় তাদের পরিবারের খাবার জোটে তাদের পিটাবেন না। তাদের নিত্যদিনের খাবারের যোগান দিয়েই ঘরে রাখতে হবে। নিজের সামর্থ্যের মধ্যে সরকারকেই একাজটি শুরু করতে হবে। সমাজের সামর্থ্যবানদেরও দায়িত্ব আছে।
প্রত্যেক জেলা সদরে COVID-19 ভাইরাস সনাক্তকরণ পরীক্ষা কেন্দ্র পতিষ্ঠা করতে হবে। অভিজ্ঞ ডাক্তারদের বিশেষ দায়িত্ব দিতে হবে। ডাক্তারদের স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। জেলা সদরেই বিশেষায়িত চিকিৎসাকেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করে আক্রান্তদের চিকিৎসা দিতে হবে। কোনভাবেই পুরাতন হাসপাতালগুলো করোনার চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা যাবেনা। সব হাসপাতালে ডাক্তার,নার্স, ওয়ার্ডবয়, আয়া, পরিচ্ছন্নতা কর্মি সকলকেই পিপিই দিতে হবে।
এটা জাতীয় দূর্যোগ। এ দূর্যোগ মোকাবেলায় সমস্ত সরকারী উদ্যোগে সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে রক্ত দিয়ে স্বাধীনতা অর্জন করেছি। আজ এই মহাদূর্যোগে জাতিকে ঐক্যবদ্ধভাবেই পরিত্রাণের পথ খুঁজতে হবে।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ