যে কারণে করোনা বাংলাদেশে প্রভাব ফেলতে পারছেনা

প্রকাশিত: ৭:৩২ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩০, ২০২০

যে কারণে করোনা বাংলাদেশে প্রভাব ফেলতে পারছেনা

সাত্তার আজাদ :: গুপ্তঘাতক করোনাভাইরাস বাংলাদেশে সনাক্ত হয় ৮ মার্চ। এর পর তিন সপ্তাহ অতিবাহিত। এই সময়ে দেশে শুরুতে যে ৫জন করোনায় মারা যান। হিসেব সেখানেই আছে। গত ৫ দিন ধরে নতুন করে আর কেউ মারা যাননি। এটা আমাদের মত বহুল জনগোষ্ঠীর দরিদ্র দেশের জন্য প্রতিপালকের আর্শিবাদ। যে দেশে পিপিই নেই, পিপিই’র বদলে মানুষ রেইনকোর্ট পরে। সে দেশে সৃষ্টিকর্তার দয়া নয় তো কি। কত বড় পরাশক্তি আমেরিকা কাহিল, স্পেন-ইতালি ধরাশায়ী, ইরান যুক্তরাজ্য কানাডা জার্মানের মত উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থার দেশেও তারা নিরুপায়।

যে কারণে করোনাভাইরাস বাংলাদেশে প্রভাব ফেলতে পারছেনা- তা হল প্রতিপালকের বিশেষ দয়া। এদেশের আবহাওয়া মানবদেহের জন্য অনুকূলে। শুষ্ক বাতাসে জীবাণু ঠিকতে পারেনা। বড় বিষয় হল- আমরা বিষ খেয়েও হজম করেত পারি। পরিস্থিতিতে পড়ে হজমি শক্তি বেড়ে গেছে আমাদের। তা না হলে ফরামলিন খেয়ে মানুষ ঠিকতে পারে কি করে।

একটি গল্প বলি। আমি তখন ছোট। গ্রামের বাড়ি। পুকুরের পানি পান করতাম। নলকূপ ছিল না। অনেক বাড়িতে পুকুরও ছিল না। এক পুকুরের পানি অনেকেই নিতেন। মা মাটির কলসি দিয়ে পুকুর থেকে পানি আনতেন। কলসির মুখে লাগানো হত কাপড়ের ছাকনি। কাপড়ের সে ছাকনিতে কত পোকা আটকা পড়ত। জীবন্ত পোকা নড়াচড়া করতে দেখতাম। করোনার মত জীবাণু নয় যে খালি চোখে দেখা যায়না। সে সব জীবাণু সাধারণ চোখে ধরা পড়ত। সেই পানি ঘরে রেখে পান করেছি। কিছুই হয়নি। কথা হল শরীরের নাম ‘মহাশয় যা দিবে তা-ই শয়’। এখন কিছুটা হলেও বিশ্বাস হল কি- কেন যে আমি বলি বাংলাদেশে পৌঢ়ত্ব সময় পার করছে করুনা। কারণ আমি দেখে-শুনে পুকুরের জলের জীবাণু খেয়ে অভ্যস্ত। সেইরকম জীবাণুর সাথে লড়াকু আমাদের বাঙালি দেহ। এখন বোঝলেন তো কেন করোনা আমাদের কাবু করতে পারছে না। অথচ সারা বিশ্ব কাঁপিয়ে তুলেছে।

বিশ্বে এ পর্যন্ত ৬ লক্ষ ৩৪ হাজার ৮৩৫জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬৩,১৫৯জন। এদের মধ্যে ২৯,৯৫৭জন মারা গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩,৪৬৪জন। দক্ষিণ এশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগী ৬২৪জন আর মারা গেছেন ১৩৯জন।

আমি সেই জন- গরুর গোবর নিয়ে নাড়াচাড়া করেছি টিটিনাসের ভয় করিনি। গ্রামে থাকায় ময়লা আর নর্দমায় হেঁটেছি জীবাণু আক্রমণ করতে পারেনি। কাঁচের টুকরো দেহ কেটেছে। তিন-চার ইঞ্চি তো হবেই। বনের পাতা কষলে লাগিয়ে দিয়েছি ভালো হয়ে গেছে। আমি সেই বাঙালি। আপনি আমার ভাই।আপনিও আমার মত বাঙালি। ভয় কিশের।

আমি কোনো জ্যোতিষবিজ্ঞানী নই। তবে আমার সেইরকম জীবন অভিজ্ঞতা আছে। পরিবেশের সাথে যুদ্ধ করে এই বয়সে। ভয় পাবেননা। বাঙালির শরীর বিষাক্ত। সাধারণ করোনা কিছু করতে পারবেনা। তবে সকলে সচেতন থাকবেন। বিশ্বাস করেন আর নাই করেন- আমার কথা হল করোনার শৈশব শুরু চীনে, কৈশোর ইরানে, যৌবন স্পেন-ইতালিতে আর পৌঢ়ত্বে এসেছে বাংলাদেশে। এই বুড়ো করোনা কিছুই করতে পারবেনা। কারণ হল দুর্যোগ বলেন আর আপদ বলেন- শুরু হয় আস্তে করে যৌবন পায় মধ্যে (ওই সময় তছনছ করে) এর পর ধীরে নিস্তেজের পথে বা পৌঢ়ত্বে চলে যায়। সন্ত্রাসী মানুষ থেকে শুরু করে হিংস্র পশু জীবন চক্র করোনার মত। এটা আমার দেখা জীবন অভিজ্ঞতা। নির্ভয়ে থাকুন। যে-যার মত উপাসনা করুন। করোনা নিস্তেজ হবে জুনের আগেই। আরো আগে হতে পারে। বলতে পারেন আমেরিকায় তান্ডব চালাচ্ছে কেন। উত্তর হল প্রদীপ নিভার আগে একবার প্রজ্জ্বলিত হয়।করোনা নির্মূল হবেই।

লেখক: সিনিয়র সংবাদিক
সহ-সভাপতি, সিলেট জেলা প্রেসক্লাব।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ খবর

আমাদের ফেইসবুক পেইজ