তাহিরপুরে আটককৃত বিরল প্রজাতির বণ্যপ্রাণীটি সুনামগঞ্জ রেঞ্জ অফিসে হস্তান্তর

প্রকাশিত: ৪:৪২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১, ২০২০

তাহিরপুরে আটককৃত বিরল প্রজাতির বণ্যপ্রাণীটি সুনামগঞ্জ রেঞ্জ অফিসে হস্তান্তর

সিল-নিউজ বিডি-ডেস্ক :: সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে আটককৃত বিরল প্রজাতির বণ্যপ্রাণীটি সুনামগঞ্জ রেঞ্জ অফিসে হস্তান্তর করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে তাহিরপুর উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা বিজেন ব্যানার্জির নির্দেশে থানা পুলিশের উপস্থিতিতে বণ্যপ্রানীটি উপজেলার ধলইরগাও বিট অফিসের প্রতিনিধির কাছে হস্তান্তর করা হয়। বর্তমানে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে রাস্তায় গাড়ী চলাচল না থাকায় বন বিভাগের তাহিরপুর- বিশম্ভপুর এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত ধলইরগাও বিট অফিসার বিরেন্ড কিশোর রায় তার প্রতিনিধির মাধ্যমে বুধবার সকালে বণ্যপ্রানীটিকে সুনামগঞ্জ রেঞ্জ অফিসে হস্তার করেন। তিনি জানান, গাছে আটককৃত বণ্যপ্রানীটি বিরল প্রজাতীর লজ্জাবর্তী বানর। লজ্জাবতী বানরটি বর্তমানে সুস্থ ও সবল আছে। এ জাতীয় বানর সহজে এখন আর দেখা যায় না।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্ধ গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মনজুরুল আলমের পরিত্যক্ত বাড়ির বেল গাছে বিরল প্রজাতীর ্বণ্যপ্রাণীটিকে দেখতে পায় গ্রামের লোকজন। পরে তারা বন্যপ্রানীটিকে গাছের ডাল থেকে আটক করে লোহার খাঁচার মধ্যে ভরে রাখে। বিরল জাতীয় বণ্যপ্রানী আটকের সংবাদ পেয়ে আশপাশের কয়েক গ্রামের উৎসুক জনতা প্রানীটিকে এক নজর দেখার জন্য ভিড় করে। গ্রামবাসী ধারণা করেন,বণ্যপ্রাণীটি দেখতে অনেকটা বন বিড়াল বা ভাল্লুকের মতো। গায়ের রং দোসর, লম্বায় প্রায় ১০ থেকে ১৫ ইঞ্জি, গায়ে অনেক লোম। এমন বণ্যপ্রাণী এর আগে তারা দেখেননি বলে জানান।

কামড়াবন্ধ গ্রামের জাকির হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে থানা পুলিশের উপস্থিতিতে ধলইরগাও বিট অফিসের প্রতিনিধি বণ্যপ্রানীটিকে লোহার কাচার মধ্যে ভরে নিয়ে গেছেন।

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা বিজেন ব্যানার্জি জানান, বিরল প্রজাতীর বণ্যপ্রানীটি পুলিশের উপস্থিতিতে বণ বিভাগের প্রতিনিধির কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আমাদের ফেইসবুক পেইজ