সিলেটে অপরিকল্পিত ত্রাণ বিতরণে বাড়ছে বিপদের শঙ্কা !

প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১, ২০২০

সিলেটে অপরিকল্পিত ত্রাণ বিতরণে বাড়ছে বিপদের শঙ্কা !

জুনেদ আহমদ :: করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সিলেটে লোক চলাচল, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ অনেক কিছু স্থবির হয়ে পড়েছে। এতে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন দিনমজুর ও ছিন্নমূল মানুষ।

এসব লোকজনের পাশে দাঁড়াচ্ছে সরকার, প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। খাদ্য সংকটে পড়া ব্যক্তিদের দেওয়া হচ্ছে ত্রাণ। তবে অপরিকল্পিতভাবে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের এই প্রক্রিয়ায় বিপদের শঙ্কা তৈরি হয়েছে সিলেটবাসীকে। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যখন জনসমাগম এড়ানোই প্রধান লক্ষ্য, তখন এই ত্রাণ বিতরণকে কেন্দ্র করে হাজারো মানুষের জমায়েত নিজের পায়ে কুড়াল মারার মতো বলে মনে করা হচ্ছে।

গত ২৬ মার্চ ‘ঘরে থাকুন’ স্লোগান নিয়ে যে ১০ দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা ও সব ধরনের গণপরিবহন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে তার প্রধান উদ্দেশ্য গণজমায়েত এড়ানো। পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকার ১১ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়িয়েছে। যেহেতু করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক এখনো আবিষ্কার হয়নি, তাই ঘরে থাকাকেই প্রধান প্রতিরোধ ব্যবস্থা হিসেবে মানা হচ্ছে বিশ্বব্যাপী।

করোনা প্রতিরোধে সমাজের খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়াতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানের পরই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও মানুষ এগিয়ে এসেছেন। দিনমজুর ও ছিন্নমূল অসহায় মানুষদের জন্য রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হচ্ছে। এতে কিছুটা হলেও উপকৃত হচ্ছেন নিম্ন আয়ের মানুষগুলো।

গত কয়েকদিনে সিলেটের বিভিন্ন জেলা উপজেলায় এসব খাদ্যসামগ্রী বিরতণ হয়েছে। কিন্তু ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে গণজমায়েতের বিষয়টি মাথায় রাখছেন না তারা। ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে যদি আমরা ভূলে যায় করোনা তাহলে এই মহামারি থেকে পাবো না রক্ষা।

 

আমাদের ফেইসবুক পেইজ