‘ইসরাইলের দখলদারিত্বের অবসান ছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি আসবে না’

প্রকাশিত: ৩:১০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২০

‘ইসরাইলের দখলদারিত্বের অবসান ছাড়া মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি আসবে না’

 

অনলাইন ডেস্ক ::

ফিলিস্তিনি নেতা মাহমুদ আব্বাস বলেছেন, কেবল দখল করা ভূখন্ড থেকে ইসরাইল সরে গেলেই মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি আসতে পারে।

অবৈধ এ রাষ্ট্রের সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তি স্বাক্ষরের পর তিনি একথা বলেন। বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

ওয়াশিংটনে এ সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষরের পর এক বিবৃতিতে মঙ্গলবার আব্বাস বলেন, ইসরাইলি দখলদারিত্বের অবসান না হওয়া পর্যন্ত এ অঞ্চলে শান্তি, নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা অর্জিত হবে না।

তিনি বলেন, তাদের এ কর্মকান্ডকে ‘বিশ্বাসঘাতকতা’ হিসেবে অভিহিত করে ফিলিস্তিনিরা এর নিন্দা জানায়।

এদিকে গোটা মুসলিম বিশ্বের উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠাকে পাশ কাটিয়ে ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণে আনুষ্ঠানিক চুক্তি সই করল দুই আরব দেশ, বাহরাইন ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।

হোয়াইট হাউসে মঙ্গলবার দুপুরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপস্থিতিতে বহুল বিতর্কিত চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়।

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু, আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ান ও বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল লতিফ আল জায়ানি নিজ নিজ দেশের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

চুক্তি স্বাক্ষর উপলক্ষে এদিন সংশ্লিষ্ট তিনটি দেশের প্রায় ৭০০ অতিথির জন্য এক জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন ট্রাম্প।

এর আগে সর্বশেষ ১৯৯৪ সালে এমন অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছিল। হোয়াইট হাউসে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের উপস্থিতিতে একই ধরনের চুক্তি স্বাক্ষর করেন ইসরাইলের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী আইজাক রবিন ও জর্ডানের বাদশাহ হুসেইন।

এদিকে চুক্তি স্বাক্ষরের একদিন আগে জেরুজালেমের একটি মসজিদ ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছে ইসরাইল।

পবিত্র আল-আকসা মসজিদের পাশেই সিলওয়ান শহরে অবস্থিত আল-কাকা বিন আমর নামে নতুন মসজিদটি ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির এক আদালত।

ইসরাইলের এই মসজিদ ভাঙার আদেশের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ।

সেই সঙ্গে ইসরাইলের দখলদারি মোকাবেলায় ঐক্য গড়ে তুলছে ফিলিস্তিনের রাজনৈতিক দলগুলো। ইতোমধ্যে প্রধান রাজনৈতিক দল ফাহাহ ও হামাসসহ বেশ কয়েকটি দল নিজেদের মধ্যে ঐক্য গড়ে তুলতে সম্মত হয়েছে।

ইসরাইলের সঙ্গে আরব দেশগুলোর সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণে প্রকাশ্য পদক্ষেপের পরিপ্রেক্ষিতে নিজেদের মধ্যকার দ্বন্দ্ব ও বিভেদ কাটিয়ে ওঠার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফিলিস্তিনিরা।

গত ৭০ বছর ধরে একের পর এক এলাকা দখলের সঙ্গে ফিলিস্তিনের বহু ধর্মীয় স্থাপনা ও মসজিদ গুঁড়িয়ে দিয়েছে ইসরাইল।

তার ধারাবাহিকতায় এবার আল-কাকা বিন আমর মসজিদের দিকে নজর দিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

সোমবার আদালতের এক বিবৃতিতে দাবি করা হয়, মসদিজটি বিনা অনুমতিতে তৈরি করা হয়েছিল। মসজিদটি ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেয়ার পাশাপাশি আদেশটির বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ জানাতে ফিলিস্তিনকে ২১ দিনের সময় দেয়া হয়েছে। এরপর এটি ভেঙে দেয়া হবে।

২০১২ সালে নির্মিত এই মসজিদটি দুই তলাবিশিষ্ট এবং ১১০ বর্গমিটার জায়গাজুড়ে অবস্থিত।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ