বিশ্বনবীকে অবমাননা: বিক্ষোভে উত্তাল মৌলভীবাজার

প্রকাশিত: ৯:৩০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩০, ২০২০

বিশ্বনবীকে অবমাননা: বিক্ষোভে উত্তাল মৌলভীবাজার

স্বপন দেব, নিজস্ব প্রতিবেদক :: ফ্রান্সে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা:) এর ব্যঙ্গ চিত্র প্রকাশ ও প্রদর্শন করা হয়েছে। এর প্রতিবাদে সারাবিশ্বের ন্যায় উত্তাল হয়ে উঠেছে মৌলভীবাজার।

প্রতিদিন জেলার শহর গ্রাম সর্বত্রই হচ্ছে বিক্ষোভ। এসব বিক্ষোভ প্রতিবাদী জনতার অংশগ্রহণে হয়ে উঠে লোকে লোকারণ্য। গেল কয়েকদিনে মৌলভীবাজার শহরে অন্তত অর্ধশতটি বিচ্ছিন্ন মিছিল, সমাবেশ ও মানববন্ধনের হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এসব বিক্ষোভে ফ্রান্স সরকারকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান মুসলমানরা। একই সাথে ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের ডাক দেন অনেক ধর্মীয় ও সামাজিক সংগঠন।

শুক্রবার শহরের দেওয়ানী জামে মসজিদ থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে সম্মিলিত উলামা মাশায়েখ পরিষদ জেলা কমিটি। পরে বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের সেন্ট্রাল রোডে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। এরপর বিক্ষোভ করে শেখ বোরহান উদ্দিন সোসাইটি। এছাড়াও একই দিন শহরের বিভিন্ন জায়গায় প্রতিবাদ মিছিল করে হেফাজতে ইসলাম, বাংশাদেশ খেলাফত মজলিস ও স্বপ্নের ঢেউ সমাজকল্যাণ সংস্থা।

আগের দিন বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ মিছিল করে উলামা পরিষদ। শহরের শাহ মোস্তফা সড়ক থেকে সমাবেশ শেষে করে বিশাল মিছিল বের করে তারা।

বুধবার বাংলাদেশ আঞ্জুমানে তালামীযে ইসলামিয়ার মৌলভীবাজার জেলা শাখার উদ্যোগে শহরের চৌমুহনা দেওয়ানী জামে মসজিদের সামন থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে পশ্চিমবাজার এলাকায় গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। মিছিলে শত শত ধর্মপ্রাণ তালামীয কর্মীরা অংশে নিয়ে মহানবী (সা:) এর অবমাননার প্রতিবাদ জানান।

এছাড়াও বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে- বাংলাদেশ স্টুডেন্স টাইটস কাউন্সিল, তরুণ আলেম সমাজসহ বিভিন্ন সামাজিক ও ইসলামী সংগঠন। আর তৌহিদী জনতার ব্যানারে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় বিশাল বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।

এসব বিক্ষোভের অনেকটিতেই বিপুল সংখ্যক মুসলমানের উপস্থিতি ছিল। কোনটির বিক্ষোভ এলাকায় তিল ধারণের ঠাই হয়নি। চারদিকে শুধু মানুষ আর মানুষ। কারো হাতে প্রতিবাদী লেখা সম্বলিত বিভিন্ন ফেস্টুন। অনেকটা বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে রয়েছে মৌলভীবাজার।

বিক্ষোব্ধ জনতার দাবী, বিশ্বের কোটি কোটি মুসলমানদের প্রাণের স্পন্দন বিশ্ব নবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) কে অপমান করার জন্য কার্টোন/ব্যাঙ্গচিত্র প্রদর্শন করে ফ্রান্স সরকার কঠিন অপরাধ করছে। এজন্য ফ্রান্স সরকারকে অনতিবিলম্বে বিশ্ব মুসলিমের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে এবং ইসলাম অবমাননার সকল কর্মকান্ড চিরতরে বন্ধ করতে হবে। নাহলে বিশ্বের মুসলমানগন ফ্রান্সকে অর্থনৈতিকভাবে পঙ্গু করার জন্য ফ্রান্সের সকল পণ্য বর্জন ও সার্ভিস বয়কট করবে।

ইসলাম ও বিশ্ব নবীর অবমাননার কারণে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে মুসলমানগন জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে সর্বাত্মক আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে যাবে বলে জানান ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ