গোয়াইনঘাট ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে ৩ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত: ৭:১৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০২০

গোয়াইনঘাট ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে ৩ জনের মৃত্যু

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধিঃ
সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। হাসপাতাল ওয়ার্ডে এক শিশুসহ ২ জন ও একই পরিবারের আরেক শিশুর বাড়িতে মৃত্যু হয়েছে বলে রোগীর স্বজনরা জানান। তবে স্বাস্থ্য প্রশাসক বলেন অন্য রোগে মারা গেছেন তারা। গত এক মাসে ৭৯ জনকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে হাসপাতালের পরিসংখ্যান সূত্রে জানানো হয়। আরএমও জানান, মারাত্মক ডায়রিয়া নিয়ে রোগিরা ভর্তি হন। এর প্রধান কারণ নিরাপদ পানির সংকট।

স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রেহান উদ্দিন বলেন, ওয়ার্ডে ভর্তি শিশু মারাত্মক নিউমোনিয়া ও মহিলা হার্টের রোগে মারা যান। ১ ডিসেম্বর সকাল ৯টায় ডৌবাডি ইউপির সাতকুড়িকান্দ গ্রামের জৈন উদ্দিনের স্ত্রী সায়বান (৬০), লামা সতাইন গ্রামের ইব্রাহিমের ১ বছরের শিশু কন্যা তাসলিমা সকাল ৬টায় হাসপাতালের ওয়ার্ডে মারা যান। রোগী ছতি গ্রামের দেলোয়ার জানান, ইব্রাহিমের ৬ বছরের আরেক শিশু প‚র্বের দিন বাড়িতে মারা যায় ডায়রিয়ায়। অসহায় এই বাবার শিশুর দাফনের জন্য রোগীরা টাকা তুলে দেন। ইব্রাহিমের নিজের বাড়ি না থাকায় তিনি হাকুর বাজার একটি কলোনীতে থকেন। পুরুষ ওয়ার্ডে ভর্তি খলিলুর রহমান বলেন, সায়বান বেগমের রাতভর ডায়রিয়া হলেও কোন চিকিৎসক এসে দেখেননি।
আরএমও ডাঃ খালেদ বলেন, মারাত্মক ডায়রিয়া নিয়ে রোগীরা আসছেন, নিরাপদ পানির সংকটের কারণে এমন পরিস্থিতি ঘটছে। যারা মারা গেছেন তারা শুধু ডায়রিয়া নয়, অন্য রোগেও আক্রান্ত ছিল। কতজন রোগী ভর্তি আছেন এ তথ্য কেউ দিতে চাননি। পরে হাসপাতালের পরিসংখ্যান স‚ত্রে জানানো হয়, গত এক মাসে হাসপাতালে ৭৯ জনকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। ওয়ার্ডে দু’জন মারা গেছেন অন্য রোগে। সন্ধ্যায় হাসপাতালে মোট কতজন ডায়রিয়া রোগী দিনে ভর্তি হয়েছেন জানতে চাইলে আরএমও কোন তথ্য না দিয়ে স্বাস্থ্য প্রশাসকের নিকট থেকে জানতে বলেন।
বিষয়টি নিয়ে ফোনে কথা হলে ডাঃ রেহান উদ্দিন জানান, দু’জন অন্য রোগে মারা গেছেন। মহিলার হার্টের সমস্যা ও মারাত্মক নিউমোনিয়াও আক্রান্ত ছিল শিশুটি। তিনি বলেন ২/৩ জন ডায়রিয়া নিয়ে ভর্তি আছেন। চেয়ারম্যান মাহবুব বলেন, আমি ৩০ নভেম্বর হাসপাতালে গিয়েছিলাম রোগী দেখতে, ওয়ার্ডে নোংরা পরিবেশ বিরাজ করছে যেন দেখার কেউ নেই। ভর্তি রোগী ও এলাকার জনসাধারনের অভিযোগ হাসপাতালে অভিভাবক এখানে অবস্থান না করার কারনে নানা অনিয়ম অব্যবস্থাপনা বিরাজ করছে। জনসাধারণ সেবা বঞ্চিত হচ্ছেন। ডায়রিয়ায় গোয়াইনঘাটে অতীতে ছিল ভয়াবহ অবস্থা, অবহেলায় তা আবারও ফিরে আসতে পারে। তাই সংশ্লিষ্টদের তৎপর হওয়া প্রয়োজন। সেবার মান নিয়ে ডাক্তার রেহান বলেন সেবার মান ঠিক আছে, কিছু স্বার্থান্বেষী মহল তাঁর পিছনে লেগেছে। তবে বেশ কয়েকবার গোয়াইনঘাট হাসপাতালের সেবা আর দায়িত্বে অবহেলা নিয়ে অনলাইন নিউজ পোর্টালে নিউজ হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ