মাদকের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে : শাহপরাণ এলাকাসীর মানববন্ধন

প্রকাশিত: ৭:১৫ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৪, ২০২০

মাদকের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে : শাহপরাণ এলাকাসীর মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক

মাদক ব্যবসায়ী, মাদকসেবী ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন সিলেটের বৃহত্তর শাহপরাণ এলাকার বাসিন্দারা। শুক্রবার দুপুর দুইটায় শহরতলির শাহপরাণ-খাদিম চৌমুহনী পর্যন্ত আয়োজিত মানববন্ধন থেকে ওই ঘোষণা দেয়া হয়।

আয়োজিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন খাদিমপাড়া ইউনিয়নের চার নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার আনোয়ার হোসেন আনু। বক্তব্য রাখেন, খাদিম চৌমুহনী বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন, ব্যবসায়ী আমির আলী, শেখর রঞ্জন দাস, খাদিম চৌমুহনী বাজার মসজিদের সাবেক মোতাওয়াল্লি জুলুবুর রাজা চৌধুরী, খাদিম চৌমুহনী বাজার মসজিদের মোতাওয়াল্লি রাজা মিয়া রাজন, মসজিদ সেক্রেটারি বেলাল আহমদ, আফতাব উদ্দিন, শাহপরান আবাসিক এলাকার বাসিন্দা সোহেল আহমদ, মোহাম্মদ আলী খোকন, আবু জাফর জাহাঙ্গির, মিঠু আহমদ, নেয়ামত আলী, আবুল কাশেম, আবুল বাতেন চৌধুরী নাদের, কামাল আহমদ, আবদুল কুদ্দুস, ফারুক আহমদ, আল আমিন, সালেহ আহমদ, হেলাল উদ্দিন মিনাল, হানিফ মিয়া, হেলাল উদ্দিন, আবদুল মুমিন, আবদুর রাজ্জাক, শুভ আহমদ, সুলতান আহমদ, জিলুক মিয়া, জিল্লু বারী, চন্দন দাস, কালাম মিয়া, কাইয়ুম, তাহির. রাজু ও তাঁতী লীগ নেতা পারভেজ আহমদ রাজু ।

মানববন্ধন চলাকালে এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে সিলেট-তামাবিল সড়ক অবরোধ করেন। মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজদের গ্রেফতার না করায় ওই অবরোধ গড়ে তুললে রাস্তার দুই পাশে শতশত যানবাহন আটকা পরে। এসময় পুলিশের উর্ধ্বন কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ করেন মেম্বার আনোয়ার হোসেন আনু ও সাংবাদিক মুজিবুর রহমান ডালিমের সাথে। পুলিশ থেকে জানানো হয় অবিলম্বে আসামিদের গ্রেফতার করা হবে। ওই আশ্বাস পেয়ে অবরোধ তুলে নেয়া হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজদের কারণে বৃহত্তর শাহপরান এলাকার সামাজিক পরিবেশ হুমকীর মধ্যে পড়েছে। মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পান না। কারণ প্রতিবাদ করে সাধারণ মানুষ বিভিন্ন সময় লাঞ্ছিত হয়েছেন। শাহপরান উপশহরের বাসিন্দারা ওইসব মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়েছিলেন। পুলিশ বরাবরে আবেদন করেছেন। এর জের ধরে সাংবাদিক মুজিবুর রহমানর ডালিমের বাসায় হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়।

বক্তারা বলেন, ওইসব দুর্বৃত্তের অপকর্ম আর মেনে নেয়া যায় না। তাদের বিরুদ্ধে এখন থেকে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে। যেকোনো মূল্যে শাহপরান এলাকাকে মাদক ও চাঁদাবাজ মুক্ত করা হবে। এই প্রেক্ষাপটে বক্তারা পুলিশি পদক্ষেপ কামনা করে বলেন, সরকার মাদক ও চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। পুলিশও মাদক এবং চাঁদাবাজীর বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বক্তারা।

বক্তারা বলেন, আসামিদের গ্রেফতার না করলে রাস্তা অবরোধসহ কঠোর কর্মসূচি নেয়া হবে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ