বিদ্রোহীদের মদদদাতা এমপি-মন্ত্রী হলেও শাস্তি পাবেন: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত: ১০:২৬ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৪, ২০২০

বিদ্রোহীদের মদদদাতা এমপি-মন্ত্রী হলেও শাস্তি পাবেন: ওবায়দুল কাদের

অনলাইন ডেস্ক

দলে সিদ্ধান্তের বাইরে বিদ্রোহ করে পার পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, কারা কারা বিদ্রোহ করেও প্রার্থিতার জন্য ফরম জমা দিয়েছেন, দিচ্ছেন- সেটাও আমরা নজরদারির মধ্যে রেখেছি। যারা অতীতে বিদ্রোহী হয়েছিলেন, তারা জয়ী হোন বা পরাজিত হোন, তাদের দলীয় ফরম সংগ্রহের কোনো প্রয়োজন নেই। তাদের মনোনয়ন দেয়া হবে না।

শুক্রবার আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটি আয়োজিত সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

রাজধানীর সংসদ ভবন এলাকায় সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে সংযুক্ত হন ওবায়দুল কাদের। ওবায়দুল কাদের বলেন, শুধু বিদ্রোহী নন, তাদের যারা মদদদাতা- তিনি মন্ত্রী হোন আর এমপি হোন বা দলের কোনো পদে থাকুন, কাউকে ছাড়া দেয়া হবে না। তাদেরও শাস্তির আওতায় আসতে হবে।

স্থানীয় পর্যায়ে বিভিন্ন নির্বাচন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, দল করলে দলের সিদ্ধান্ত মানতে হবে। দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে জয়ী বা পরাজিত হলে পরবর্তী সময়ে তাদের আর কোনো সুযোগ দেয়া হবে না। প্রথম ধাপের ২৫টিতে আমরা মনোনয়ন দিয়েছিলাম। কিন্তু খবর পেলাম ৩ জন বিদ্রোহী রয়েছে। পরে জানতে পেরে নেত্রী (শেখ হাসিনা) সঙ্গে সঙ্গে তাদের পরিবর্তে পরে যাদের নাম ছিল তাদের দিয়েছেন।

সরকারের ঈর্ষণীয় উন্নয়ন দেখে একটি মহল দেশবিরোধী বিভিন্নমুখী ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, সারা দেশে আজ যে ঈর্ষণীয় উন্নয়ন হয়েছে, তাতে প্রতিপক্ষ কোনো ধরনের ধন্যবাদ জানায়নি, উল্টো তারা সমালোচনা করেই যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ উন্নয়ন এবং সততা দিয়েই দেশের জনগণের মন জয় করে নিয়েছে। আর এতেই বিএনপির সহ্য হয় না। তাই তারা দেশবিরোধী বিভিন্নমুখী ষড়যন্ত্র চালাচ্ছে। এ সময় আওয়ামী লীগ কখনও গায়ে পড়ে ঝগড়া করে না, তবে কেউ আক্রমণ করলে পাল্টা জবাব দিতে প্রস্তুত রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এ সময় ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা এবং উপদফতর সম্পাদক সায়েম খানসহ আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ