শায়েস্তাগঞ্জে স্কুলছাত্র হত্যা : নিহতের শার্ট ও প্যান্ট উদ্ধার

প্রকাশিত: ৬:২২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

শায়েস্তাগঞ্জে স্কুলছাত্র হত্যা : নিহতের শার্ট ও প্যান্ট উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক
হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে স্কুলছাত্র তানভীর হত্যার ঘটনাস্থল থেকে তার ব্যবহৃত শার্ট ও প্যান্ট উদ্ধার করেছে শায়েস্তাগঞ্জ থানার পুলিশ। আজ মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টায় হত্যা মামলার প্রধান আসামি উজ্জ্বলকে সঙ্গে নিয়ে তদন্তের স্বার্থে এসব আলামত উদ্ধার করে পুলিশ।

এসময় প্রধান আসামি উজ্জ্বলকে দেখতে সেখানে উৎসুক জনতার ঢল নামে। সকলের সামনেই উজ্জ্বল স্বীকারোক্তি দেন, তানভীরকে তারা তিনজন মিলে হত্যা করেছেন।

এ বিষয়ে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অজয় চন্দ্র দেব জানান, আজ আদালত আসামিদের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। আদালতের নির্দেশনামতে নিহত তানভীরের শার্ট ও প্যান্ট উদ্ধার করা হয়েছে। আসামিরা অনেক আগেই হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে স্বীকারোক্তি দিয়েছে।

জানা যায়, গত ২৪ জানুয়ারি উজ্জ্বল, জাহিদ ও শান্ত তানভীরকে হত্যার ছক কষে। তাদের পরিকল্পনা মোতাবেক উজ্জ্বল তানভীরের গলায় সুতা দিয়ে ফাঁস দেয়। শান্ত এবং জাহিদ তানভীরের মুখ চেপে ধরে রাখে। কিছুক্ষণের মধ্যেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পরে তানভীর। পরে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী তানভীরের মৃতদেহটি পাশের পুকুরের কাদার নিচে মাটিচাপা দিয়ে রাখে হত্যাকারীরা। তারা ওই স্থানে অনেক কচুরিপানা দিয়ে রাখে যাতে মরদেহের সন্ধান কেউ না পায়।

এরপর উজ্জ্বল ও জাহিদ পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী অপহরণের নাটক সাজায়। জাহিদ তানভীরের ব্যবহৃত সিম থেকে তার বাবার নম্বর সংগ্রহ করে এবং উজ্জ্বলের পরামর্শ অনুযায়ী মুক্তিপণের জন্য ৮০ লাখ টাকা দাবি করে। পরে উজ্জ্বলের বাড়ির পরিত্যক্ত একটি ডোবা থেকে তানভীরের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। হত্যার ঘটনায় পরদিন তানভীরের বাবা পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় মোট ৪ আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তারা হলেন- উজ্জ্বল, জাহিদ, শান্ত ও লিমন।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ