তারা ডাকাত: হাইকোর্ট

প্রকাশিত: ১১:৩২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

তারা ডাকাত: হাইকোর্ট

অনলাইন ডেস্ক

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত তিনটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতি ও অর্থনৈতিক ধস খতিয়ে দেখতে কারণ উদঘাটন (ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং) কমিটি করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। ২০০২ সাল থেকে এসব আর্থিক প্রতিষ্ঠান দেখভালের দায়িত্বে থাকা বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তাদের দায়ও নিরূপণ করবে এই কমিটি।

মঙ্গলবার বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশিদ আলম সরকারের হাইকোর্টের একক বেঞ্চ এ কমিটি করেন। তিনটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান হলো- বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানি লিমিটেড (বিআইএফসি), পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইনান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড।

এক পর্যায়ে আদালত ব্যাংকের এক কর্মকর্তাকে ডাকাত বলে সম্মোধন করেন। আদালত বলেন, সাধারণ মানুষের টাকা যারা আত্মসাৎ করেছে, তারা ডাকাত। পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইনান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড যাতে চালু থাকে সেজন্য কী পদক্ষেপ নেওয়া যায়, সে বিষয়ে দুদক চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ ব্যাংকের গর্ভনর ও সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশনের (এসইসি) চেয়ারম্যানের বক্তব্য শুনবেন হাইকোর্ট। আগামী বৃহস্পতিবার ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তাদের বক্তব্য শুনবেন উচ্চ আদালত।

এদিকে বেসিক ব্যাংকের আত্মসাৎকৃত ৩১০০ কোটি টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়া হয়েছে। বাকি ১০০০ কোটি টাকার গতিপথ নির্ণয়ে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। প্রতিবেদনটি আগামী মঙ্গলবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চে জমা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

আমাদের ফেইসবুক পেইজ