#BangladeshChallenge এর শীর্ষ ১০০ জনের মধ্যে সিলেটের ওমর

প্রকাশিত: ৩:০৪ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০২০

#BangladeshChallenge এর শীর্ষ ১০০ জনের মধ্যে সিলেটের ওমর

সিল-নিউজ-বিডি ডেস্ক :: ঘরে বসেও পথ দেখানো সম্ভব এই স্লোগানকে সামনে রেখে দেশব্যাপী শুরু হয় #BangladeshChallenge। #BangladeshChallenge এ ৩১ হাজার তরুণের অংশগ্রহণে ঘরে বসে বাংলাদেশের সকল এলাকায় গুগল ম্যাপ বা ওপেন স্ট্রিটের সাহায্যে নিকটবর্তী তথ্য যেমন হাসপাতাল, ফার্মেসি, নিকটবর্তী ফ্লেক্সি/বিকাশ/নগদ পয়েন্ট এবং এমন আরো অনেক কিছু যোগ করতে পারবে ডিজিটাল ম্যাপসে যোগ করতে পারবে৷

#BangladeshChallenge ক্যাম্পেইনের ম্যাপিং কার্যক্রমে সিলেটের আলী হাসান ওমর প্রায় আড়াই হাজারের বেশি ম্যাপ এডিটের অবদান রাখায় শীর্ষ ১০০ জন তরুণের মধ্যে স্থান করে নেয়ার গৌরব অর্জন করেছেন। তার এ সফলতার কারণে ক্যাম্পেইনের সমাপনী অনুষ্ঠানের ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত করাসহ পুরস্কার প্রদান করা হয়।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, এটুআই এবং গুগলের সমন্বয়ে গ্রামীণফোনের উদ্যোগে এই ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকসহ দেশ বরেণ্য ব্যক্তিরা অংশগ্রহণ করেন।

নগরীর ২০নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আলী হাসান ওমর এরআগে সরকারের বিভিন্ন ডিজিটাল কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে পুরস্কার অর্জন করেছেন এবং গুগল কন্ট্রিবিউটর হিসেবে তার পরিচিতি আছে।

এ ব্যপারে ওমর বলেন, ১৩ বছর টেলিকম-এ কাজ করার সুবাদে তিনি যা শিখেছেন ও জেনেছেন তার সুফল যাতে সমাজ পায় তার লক্ষে তিনি তার কন্ট্রিবিউশন কার্যক্রম চালিয়ে যাবেন। এখন পর্যন্ত তিনি গুগল ম্যাপেই ১১ হাজারের বেশি এডিট করে দিয়েছেন। এছাড়াও বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত ডিজিটাল বাংলাদশ প্রজেক্টে প্রথম থেকেই কাজ করে যাচ্ছেন। ভবিষ্যতে সরকারের ডিজিটাল কার্যক্রমে তার ভূমিকা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

সংশ্লিষ্টদের দেয়া তথ্য মতে, গ্রাম ও শহরাঞ্চলের নাগরিক, স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিত ব্যক্তি এবং ই-কমার্স ডেলিভারি এজেন্টদের ম্যাপ দেখে নির্দিষ্ট স্থান খুঁজে বের করার সহায়তায় গুগল ম্যাপস এবং ওপেন স্ট্রিট ম্যাপ আরও সমৃদ্ধ করতে #BangladeshChallenge নামে ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা হয়। এই কার্যক্রমে প্রায় ৩১ হাজার নিবন্ধনের মাধ্যমে এক লাখ ১০ হাজার ম্যাপ পোস্ট পাওয়া গেছে। অন্যদিকে ফেইসবুকে ৮ দশমিক ৫ মিলিয়নের বেশি রিচ এবং ৯৬ দশমিক ৭ মিলিয়নের বেশি ইমপ্রেশন পাওয়া গেছে। সারা বাংলাদেশের তরুণরা বাড়িতে অবস্থান করেই এই পুরো ম্যাপিং প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছে।

ম্যাপিং কার্যক্রমে অবদান রাখা শীর্ষ ১০০ জন তরুণকে গ্রামীণফোনের পক্ষ থেকে বিশেষ সম্মাননা দেয়া হয়। অন্যদিকে শীর্ষ ২০০ জন ম্যাপার এটুআই-এর একশপ প্লাটফর্মে সাথে কাজ করার সুযোগ পাবেন। সেই সাথে ৩১ হাজার রেজিস্টার্ড ম্যাপারকে ই-সাটিফিকেট দেবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ। এ ক্যাম্পাইনের মাধ্যমে ইতোমধ্যে ৫ হাজার হাসপাতাল, ১৬ হাজার ফার্মেসি এবং ২০ হাজার গ্রোসারি সন্নিবেশিত করার পাশাপাশি ৮৭০ টি রাস্তা ম্যাপে যুক্ত হয়েছে। ডিজিটাল ম্যাপ হালনাগাদ করার কারণে ই-কমার্স ডেলিভারি সুবিধা তৈরির সাথে সাথে অসংখ্য নাগরিক সেবার ক্ষেত্রে শহর ও গ্রামের দূরত্ব কমিয়ে আনতে এই ম্যাপিং কাজে লাগবে এবং দীর্ঘমেয়াদে জাতিকে নানাভাবে সহযোগিতা করবে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun

আমাদের ফেইসবুক পেইজ