কানাডার ম্যানিটোবা প্রভিন্সের স্কুল খুলল

প্রকাশিত: ১১:০২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২০

কানাডার ম্যানিটোবা প্রভিন্সের স্কুল খুলল

অনলাইন ডেস্ক :
কোভিড-১৯ এর আতঙ্ক নিয়ে কানাডার বিভিন্ন প্রভিন্সে স্কুলগুলো খুলছে। প্রতি বছর সামারের পর সারা কানাডাতে “ব্যাক টু স্কুল” অত্যন্ত উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়। সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয় স্কুল খোলা। এবার স্কুলগুলো খুললেও সবার মাঝে কাজ করছে ভীতি। মার্চ থেকে কানাডার সব স্কুলের ক্লাস বন্ধ ছিল।

কোভিড-১৯ এর কারণে স্কুল খোলার যে ভীতি তা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে পাশের দেশ আমেরিকার স্কুল খোলার অভিজ্ঞতা।
সে দেশে স্কুল খোলার পর প্রায় লক্ষাধিক ছাত্রছাত্রীদের কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পড়েছে।

কানাডায় সবার মাঝে কাজ করছে অজানা আতঙ্ক। ক্যুবেক প্রভিন্সের স্কুলগুলো ২ সপ্তাহ আগে খুলেছে। সেখানকার অবস্থা অনেক আশঙ্কার চাইতেও খারাপ। ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মোট ১১৮ জনের কোভিড-১৯ পজিটিভ পাওয়া গেছে। আর শুধুমাত্র ক্যালগেরিতে পাওয়া গেছে ৭টি পজিটিভ কেস। পজিটিভ ধরা পড়া স্কুলগুলোর শিক্ষা কার্যক্রম প্রায় বন্ধকরণ শিক্ষকরা সেলফ আইসোলেশনে চলে গেছেন।

কানাডার স্কুলগুলো যেহেতু প্রভিন্স কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত সেই কারণে প্রতিটা প্রভিন্স তাদের নিজস্ব গাইডলাইন অনুযায়ী স্কুলগুলো চালু করছে।

ম্যানিটোবা প্রভিন্সের স্কুলগুলো শুরু হয়েছে ৮ সেপ্টেম্বর থেকে। প্রভিন্সিয়াল সরকার স্কুল খোলার আগে ইতোমধ্যে ৫২ মিলিয়ন ডলার অতিরিক্ত বাজেট ঘোষণা করেছে।

এই অর্থ মূলত ক্লিনিং, মাস্ক এবং কোভিড-১৯ যেন না ছড়ায় সে কাজে ব্যবহার করা হবে।

এই প্রভিন্সে ২৩৮৯টি স্কুলে ১৮৬৩৭২ ছাত্রছাত্রী পড়াশোনা করে। মোট শিক্ষকের সংখ্যা ১৩৭৮৬ জন। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এর বাইরে ২ বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ ঘোষণা করেছেন।

এ অর্থ সারা দেশের ১০টি প্রভিন্স এবং ৪টি টেরিটোরির মাঝে ভাগ করে দেয়া হবে। এ বরাদ্দ অনেক কম বলে অনেকে মনে করেন। কারণ কোনো স্কুলে যদি কোনো শিক্ষকের কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পড়ে তাহলে সব শিক্ষকদের সেলফ আইসোলেশনে যেতে হবে। সেক্ষেত্রে ব্যাকআপ হিসেবে কোনো শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়নি।
কানাডার স্কুলগুলোর আরেকটি প্রধান দুর্বলতা হচ্ছে এ স্কুলগুলোর ভেন্টিলেশন ব্যবস্থা খুবই দুর্বল। শীতপ্রধান দেশ হওয়ার কারণে এখানে প্রাকৃতিক আলো-বাতাস ঢোকার কোনো ব্যবস্থা নেই।
বদ্ধ জায়গায় করোনাভাইরাস বিস্তারের সম্ভাবনা আরও বেড়ে যায়। স্কুলগুলোতে ক্লাসের সাইজ কিছুটা ছোট করা হয়েছে। স্কুলে যেসব জায়গা খালি পড়ে আছে সেসব জায়গায় ক্লাসের ব্যবস্থা করা হবে।

তাছাড়া শীত আসার আগপর্যন্ত যতটা সম্ভব স্কুলের বাইরে মাঠে বা খোলা জায়গায় ক্লাস নেয়া হবে।

ম্যানিটোবাতে গ্রেড ৪ থেকে ১২ পর্যন্ত ক্লাসে ঢোকার সময় সবার মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। স্কুলের লবিসহ সব জায়গায় পুনঃব্যবহারযোগ্য মাস্ক ব্যবহার করা হচ্ছে।

স্কুল থেকে বলা হয়েছে প্রতিদিন মাস্ক ধুতে হবে। স্কুল থেকে সবাইকে ২টি করে পুনঃব্যবহারযোগ্য মাস্ক বিনামূল্যে দেয়া হবে। এই প্রভিন্সে কিন্ডারগার্টেন থেকে গ্রেড ৮ পর্যন্ত সপ্তাহে ৫ দিনই ক্লাস হবে; তবে গ্রেড ৯ থেকে গ্রেড ১২ পর্যন্ত সবার সপ্তাহে ২ দিন ক্লাস হবে।

স্কুলগুলোতে নতুন করে ক্লিনিং নীতিমালা গ্রহণ করা হয়েছে। অতিরিক্ত পরিচ্ছন্নতা কর্মী নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে। পর্যাপ্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।
শিক্ষকরা নিয়মিত হাতধোয়ার জন্য ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহিত করবেন। সামাজিক দূরত্ব মেনে সবাইকে স্কুলে আসতে বলা হয়েছে। স্কুলের বাস যারা ব্যবহার করবে তাদের জন্যও নীতিমালা ব্যবহার করা হয়েছে। সেখানেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলা হয়েছে।
সবার মাঝে এক অজানা আতঙ্ক কাজ করছে। অনেকে স্কুল বন্ধ রাখার পক্ষে কথা বলেছিলেন।

সরকারের তরফ থেকে বলা হয়েছে- দীর্ঘ ৫ মাস ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষার বাইরে থাকা ক্ষতিকর।
উল্লেখ্য, ম্যানিটোবার বিভিন্ন স্কুলে এক হাজারের ওপরে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান পড়াশোনা করে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
1234567
15161718192021
22232425262728
293031    
       
22232425262728
2930     
       
  12345
2728     
       
28      
       
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ