ডেইলি স্টার এর নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল এর বাসায় নিহত শিশু গৃহশ্রমিক প্রীতি হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশ

প্রকাশিত: ৬:১৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২৪

ডেইলি স্টার এর নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল এর বাসায় নিহত শিশু গৃহশ্রমিক প্রীতি হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশ

ডেইলি স্টার এর নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল এর বাসায় নিহত শিশু গৃহশ্রমিক প্রীতি হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশ

 

স্বপন দেব,নিজস্ব প্রতিবেদক :: ঢাকার মোহাম্মদপুরের ডেইলি স্টার এর নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল হকের বাসার কাজে নিয়োজিত শিশু গৃহশ্রমিক প্রীতি উরাং এর অস্বাভাবিক মৃত্যুর প্রতিবাদ সমাবেশ।
রোববার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে কমলগঞ্জের মির্তিংগা চা বাগানে প্রীতি উরাং এর বাড়িতে খোঁজখবর নিতে যান বাংলাদেশ চা শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।
চা শ্রমিক ফেডারেশনের পক্ষ থেকে সেসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চা শ্রমিক ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক দীপংকর ঘোষ, সাংগঠনিক সম্পাদক কিরণ শুক্ল বৈদ্য, অর্থ সম্পাদক প্রেম কুমার পাল, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ নন্দী এবং স্থানীয় চা শ্রমিক ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ।
নেতৃবৃন্দের সাথে আলাপ কালে প্রীতির বাবা-মা জানান, ডেইলি স্টারের মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি মিন্টু দেশোয়ারার মাধ্যমে ডেইলি স্টারের নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল হকের বাসায় কাজে যায় ছোট মেয়ে প্রীতি।
শুরুতেই পরিবারের লোকজনের সাথে প্রীতির যোগাযোগ তেমন করতে দেওয়া হতো না। ৬ ফেব্রুয়ারী যে দিন প্রীতি মারা যায় সেদিন মিন্টু দেশোয়ারা উনাদেরকে শ্রীমঙ্গল যাওয়ার কথা বলেন। শ্রীমঙ্গল গেলে পরে মিন্টু দেশোয়ারা উনাদের মেয়ে মারাত্মক অসুস্থ বলে জানান এবং এখনই উনার সাথে ঢাকায় যাতে হবে বলেন। সাংবাদিক মিন্টু দেশোয়ারার সাথে উনারা ঢাকায় গেলে সরাসরি থানায় নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানে জানতে পারেন মেয়েটি নাকি নয় তলা থেকে পড়ে মারা গেছে।
এরপর প্রীতির লাশ নিয়ে বাড়ি চলে আসেন। তারা কোনো মামলা হলো কি না সেটা জানেন না। এটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড এবং মেয়ে প্রীতি হত্যার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।
চা শ্রমিক ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ প্রীতির পরিবারের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, সাংবাদিক মিন্টু দেশোয়ারার উচিত ছিলো মেয়েটাকে স্কুলে পাঠানোর সামগ্রিক আয়োজন করা। তিনি তা না করে শিশুটি কাজে ঢুকিয়ে দিলেন যা প্রচলিত আইনে শিশু শ্রম নিষিদ্ধ এবং দন্ডনীয় অপরাধ। একই অপরাধে মিন্টু দেশোয়ারাও অপরাধী এবং তারও বিচার হওয়া দরকার।
ডেইলি স্টারের নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আশফাকুল হকের বাসায় এর আগেও একটা শিশু গৃহশ্রমিক ফেরদৌসী নবম তলা থেকে লাফ দিয়ে পড়ে আহত হয়। মেয়েটির মা মামলা করলেও সে বিচার আজও পাননি। আগের অপকর্মের বিচার হলে এমন নৃশংস ভাবে মেয়েটাকে মেরে ফেলতে পারতো না।
এটা প্রকারান্তরে মৃত্যু নয় সংঘটিত হত্যাকান্ড। তার যথাযথ বিচার নিশ্চিতের দাবিতে বাংলাদেশ চা শ্রমিক ফেডারেশন সবসময় সোচ্চার আছে এবং একই সাথে চা জনগোষ্ঠীর সকল প্রকার ন্যায়সংগত অধিকার আদায়ে বাংলাদেশ চা শ্রমিক ফেডারেশন পাশে থাকবে।

 

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
   1234
26272829   
       
  12345
2728     
       
28      
       
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ