গোয়াইনঘাটে ফের বন্যা , রূপায়িত আমনে আঘাতের সম্ভাবনা”

প্রকাশিত: ৪:২৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০

গোয়াইনঘাটে ফের বন্যা , রূপায়িত আমনে আঘাতের সম্ভাবনা”

 

গোয়াইনঘাট প্রতিনধিঃ গোয়াইনঘাটে বাড়ছে বন্যার পানি। কৃষকের সদ্য রূপায়িত আমন ফসলে আঘাতের সম্ভাবনা রয়েছে। অপর দিকে পাহাড়ি ঢলে উত্তাল সারী ও পিয়াইন নদী।
মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে শুরু হওয়া প্রবল বৃষ্টি আর উজান থোকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে গোয়াইনঘাট উপজেলায় বাড়ছে বন্যার পানি। দিনে বৃষ্টির পরিমাণ একটু স্থিতিশীল থাকলেও সন্ধ্যা থেকে শুরু হওয়া প্রবল বৃষ্টি চলে পরদিন সকাল ১১টা পর্যন্ত। প্রচুর পরিমাণ বৃষ্টি হওয়াতে আর পাহাড়ী ঢলে বৃদ্ধি পাচ্ছে বন্যার পানি।
উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল মোত্তালেব জানান বর্তমান বন্যার পানিতে গোয়াইনঘাট উপজেলার পশ্চিম জাফলং, পূর্ব জাফলং, লেংড়ুয়া, তোয়াকুল,ও নন্দীরগাঁও ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চলের আমনের ফসলি জমি প্লাবিত হয়েছে। উল্লেখযোগ্য বেশি ক্ষেতের পরিমাণ রুস্তমপুর, পূর্ব জাফলং পশ্চিম জাফলং ও লেংড়ূয়া ইউনিয়ন। পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নে বন্যা কবলিত নিম্নাঞ্চল আমবাড়ি হাওর, গহড়া, শিমুলতলা,ছোটখেল পোয়াউরা ও ছাতারবগাম। পূর্ব জাফলং ইউনিয়নে বাউরভাগ হাওর, বড়বর্ণ, আসামপাড়া হাওর ও ভিতরখেল। লেঙ্গুরা ইউনিয়নে গরুকচি, নিয়াগিল,চিটিংবাড়ী।রুস্তুুমপুর ইউনিয়নে উপর গ্রাম, হাদার পার, ভিতরগোল,দারীখেল,সাকরপেকেরখাল ও বঙ্গবীর। তোয়াকুল ইউনিয়নে লাকী,বলগাঁও,জাঙ্গাইল,বীরকুলি,ফুলতৈলছগাম ও পূর্ব পেকেলর খালের কয়েকটি গ্রাম উল্লেখযোগ্য। নন্দিরগাঁও ইউনিয়নে নন্দিরগাঁও, নওয়াগাঁও, কদমতলা, লামাপাড়া, কচুয়ার পার ও আংগারজুর গ্রামের আংশিক অংশ।
উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা আরো বলেন এই বছর আমনের ফসল অনেকটা ভালো হয়েছিল। বন্যার স্থায়িত্ব দীর্ঘ হলে গোটা উপজেলায় প্রায় ৫০০ থেকে ৭০০ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সংবাদ অনুসন্ধান ক্যালেন্ডার

MonTueWedThuFriSatSun
1234567
15161718192021
22232425262728
293031    
       
22232425262728
2930     
       
  12345
2728     
       
28      
       
       
       
1234567
2930     
       

আমাদের ফেইসবুক পেইজ